যমজ সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান

এই লেখাটি 41 বার পঠিত

যমজ সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের দাবিতে ছয় দিন ধরে দুই সন্তানসহ প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন এক প্রেমিকা।

এ ঘটনায় নেত্রকোনার কলমাকান্দা এলাকার কৈলাটী ইউনিয়নে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ঘটনায় যমজ সন্তানের জননী সালেহা আক্তারের (২২) স্বামী বিল্লাল হোসেন (৩০) এ দুই সন্তানের বাবা নন বলে দাবি করেন।

বিল্লাল বলেন, ছয় মাস আগে ১৫ ফেব্রুয়ারি সালেহার সঙ্গে তিনি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। সে হিসাবে তার এ দুই সন্তান হওয়ার প্রশ্নই আসে না।

এলাকাবাসী জানান, প্রায় ছয় মাস আগে সামাজিকভাবে সালেহা ও একই ইউনিয়নের বীর সিধলী গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে বিল্লাল হোসেনের বিয়ে সম্পন্ন হয়। বিয়ের ছয় মাস পার হতেই ২১ জুলাই শনিবার সালেহা তার পিত্রালয়ে যমজ দুই ছেলের জন্ম দেন। প্রেমিক মজনুই যমজ সন্তানের বাবা দাবি জানিয়ে সালেহা আক্তার জানান, বিল্লাল হোসেনের সঙ্গে বিয়ের আগে প্রেমিক মজনু তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। ছয় মাস আগে বিল্লাল হোসেনের সঙ্গে বিয়ের সময় তিনি ছিলেন চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

তিনি আরও জানান, সন্তানের অধিকার আদায়ে মজনুর বাড়িতে তিনি গেলে মজনুর পরিবারের কেউ তাকে ও তার সন্তানদের মেনে না নিয়ে উল্টো শারীরিক নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এ সময় প্রতিবেশীরা এসে তাকে রক্ষা করেন।

এ বিষয়ে সালেহার মা জুবেদা খাতুন বলেন, বিয়ের সময় মেয়ের অবৈধ সম্পর্ক ও তার গর্ভধারণের কথা তাদের জানা ছিল না।

এ ঘটনায় কলমাকান্দা থানায় সালেহার বাবা সাফাজ্জল হোসেনের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার রাতে স্বামী মজনু মিয়ার মা জাকিয়া আক্তারকে আটক করেছে পুলিশ।

কলমাকান্দা থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে। তবে মজনুর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে এখনও পাওয়া যায়নি।

Aviation News