নাসার ‘সূর্য ছোঁয়ার মিশন’; উৎক্ষেপণ করা হয়েছে মহাকাশযান পার্কার

এই লেখাটি 37 বার পঠিত

নাসার ‘সূর্য ছোঁয়ার মিশন’; উৎক্ষেপণ করা হয়েছে মহাকাশযান পার্কার
নাসার ‘সূর্য ছোঁয়ার মিশন; এর শেষ ধাপে রবিবার উৎক্ষেপণ করা হয়েছে মহাকাশযান পার্কার। এটিই কোন নক্ষত্রের পথে মানুষের প্রথম কোন মহাকাশযান পাঠানোর ঘটনা। নাসা এই যানটি পাঠিয়েছে। এই প্রথম সূর্য এবং এর বাহিরের অংশ করোনার উদ্দেশ্যে কোন যন্ত্র কিংবা যান পাঠালো মার্কিন মহাকাশ সংস্থাটি।
প্রথমে শনিবার এই উৎক্ষেপণের দিন নির্ধারিত ছিলো। কিন্তু সেদিন উৎক্ষেপণ সম্ভব হয়নি। পরে পরিবর্তীত সময় পূর্বাঞ্চলীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টায় ফ্লোরিডার কেপ কার্নিভাল থেকে পার্কার উৎক্ষেপিত হয়। একে উৎক্ষেপণে ব্যবহার করা হয় অ্যলিয়াঞ্জ ডেল্টা ফোর হেভি রকেট। রাতে এটি উৎক্ষেপণের কারণ হলো যাতে সূর্যের দিকে মোড় নিতে শুক্রের সাহায্য পাওয়া যায়।
উৎক্ষেপণের ৬ সপ্তাহ পর রকেটটি শুক্র গ্রহের মাধ্যাকর্ষণের মোকাবেলা করবে। এর ফলে গতি কমে যাবে পার্কারের। এবং যানটি সূর্যের কক্ষপথে স্থাপিত হয়ে যাবে।
জন হপকিন্স ফলিত পদার্থ গবেষণাগারের ইয়ানপিং গুয়ো বলেন, এই উৎক্ষেপণের শক্তি মঙ্গলে যেতে প্রয়োজনীয় শক্তির ৫৫ গুণ বেশী এবং প্লুটোতে যেতে প্রয়োজনীয় শক্তির দ্বিগুণ। গ্রীষ্মকালে পৃথিবী এবং অন্যান্য গ্রহ গুলো সূর্যতে যাবার জন্য সবচেয়ে ভালো অবস্থানে থাকে।’ মহাকাশে পার্কারের গতি হবে ঘন্টায় ৬ লাখ ৯২ হাজার কিলোমিটার। এই গতিতে নিউইয়র্ক থেকে টোকিও যেতে লাগবে মাত্র ১ মিনিট।

Aviation News