রাবির ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতিতে পরিবর্তন

এই লেখাটি 33 বার পঠিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতিতে আবারও বেশ কয়েকটি পরিবর্তন আনছে কর্তৃপক্ষ। আজ রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি উপ-কমিটির দ্বিতীয় সভায় ভর্তি পরীক্ষার তারিখ, আবেদন যোগ্যতা, ইউনিট পূনর্বিন্যাসসহ বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

তবে কমিটির প্রথম সভায় গৃহীত লিখিত পরীক্ষা ও প্রতি ইউনিটে ১৬ হাজার ভর্তিচ্ছুকে পরীক্ষায় বসার সুযোগ দেয়ার সিদ্ধান্তটি বহাল রয়েছে।

রবিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ভর্তি কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত হবে। সেই সভায় এসব সিদ্ধান্তের কিছু পরিবর্তন আসতে পারে বলে জানান তিনি।

এর আগে ৫ জুলাই অনুষ্ঠিত ভর্তি উপ-কমিটির প্রথম সভায় এমসিকিউর পরিবর্তে প্রতি ইউনিটে ফলাফলের ভিত্তিতে ১৬ হাজার শিক্ষার্থীর ১০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এসব সিদ্ধান্ত দ্বিতীয় সভায় বহাল রাখা হয়েছে। তবে প্রথম সভায় ৪টি ইউনিটে দুই দিনে পরীক্ষা নেওয়ার কথা থাকলেও দ্বিতীয় সভায় তা বাড়িয়ে ৫টি ইউনিট করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক শাখার উপ-রেজিস্ট্রার মো. আসলাম হোসেন জানান, ভর্তি উপ-কমিটির দ্বিতীয় সভায় আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর দুই দিনে ৫টি ইউনিটে পরীক্ষা নেয়া হবে। ১০০ নম্বরের এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে দেড় ঘন্টায়। ভর্তিচ্ছুদের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অনলাইনে ৫৫ টাকা জমা দিয়ে প্রাথমিকভাবে আবেদন করতে হবে।

ফলাফলের ভিত্তিতে আবেদনকারীদের বাছাই করে প্রতি ইউনিটে ১৬ হাজার পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষায় বসার সুযোগ দেয়া হবে। ১৫ নভেম্বরের মধ্যে এই ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে ২৫ নভেম্বর থেকে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হবে। ক্লাস শুরু হবে ২১ জানুয়ারি। এবারও রাবিতে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ বহাল থাকছে।
আরও জানা যায়, ভর্তি পরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে আবেদনের জন্য মানবিক শাখা থেকে এসএসসি বা সমমান এবং এইচএসসি বা সমমান উভয় পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে। বাণিজ্য শাখা থেকে এসএসসি বা সমমান এবং এইচএসসি বা সমমান উভয় পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৮.০০ এবং বিজ্ঞান শাখা থেকে এসএসসি বা সমমান এবং এইচএসসি বা সমমান উভয় পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৮.৫০ পেতে হবে।

‘ও’ লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে এবং ‘এ’ লেভেলে অন্তত দুটি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় লেভেলে মোট ৭টি বিষয়ের মধ্যে চারটি বিষয়ে কমপক্ষে ‘বি’ গ্রেড ও তিনটি বিষয়ে ‘সি’ গ্রেড থাকতে হবে। উভয় লেভেলের ভর্তিচ্ছুদের পরীক্ষায় প্রশ্ন প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ইংরেজিতে অনুবাদ করা হবে।

Aviation News