পশ্চিমবঙ্গে নদীতে অভিযান, পুলিশের জালে অসংখ্য কঙ্কাল

এই লেখাটি 23 বার পঠিত

পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার নবদ্বীপে ফাঁস হলো কঙ্কাল-ব্যবসা। ভাগীরথীর চরে রাতের অন্ধকারে দিনের পর দিন ধরে চলত এই অবৈধ কারবার।

মঙ্গলবার রাতে ভাগীরথীর চরে দুঃসাহসিক অভিযান চালিয়ে মানুষের হাড়গোড়ের দুই কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে দুই ব্যাগ বোঝাই মানুষের হাড়গোড় উদ্ধার হয়েছে।

কলকাতার এই সময়ের খবরে বলা হয়, ওডিশার বালেশ্বর থেকে ট্রেনপথে কঙ্কালের হাড়গোড় আসত। এছাড়াও ভাগীরথীর জলে ভেসে আসা মৃতদেহ থেকে হাড় ছাড়িয়ে তা পাচার করা হত। মেডিক্যাল স্টুডেনন্ট এবং তান্ত্রিকদের কাছে এই সব হাড়গোড় ও খুলি চড়া দামে বিক্রি করতে হাড়ের কারবারিরা। আরও কোনও ভাবে মানুষের হাড়গোড় জোগাড় করা হত কিনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ধৃতরা হল- তাপস পাল এবং কার্তিক ঘোষ। মঙ্গলবার রাতে নবদ্বীপ শহরের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের শ্রীচৈতন্যের জন্মস্থান মন্দির লাগোয়া ভাগীরথীর নিদযা ঘাটের চরে হানা দিয়ে পুলিশ পাকড়াও করে এদের। দুজনেরই বাড়ি নবদ্বীপ লাগোয়া পূর্ব বর্ধমান জেলার পূর্বস্থলী থানার থানারপাড়া নন্দ কলোনিতে।

নৌকা থেকে হাড়গোড় ছাড়াও উদ্ধার হযেছে একটি ছোট গ্যাস সিলিন্ডার, একটি বার্নার স্টোভ, কেরোসিন ল্যাম্প, দেশলাই, বাসনপত্র ডিটারজেন্ট ইত্যাদি।

Aviation News