শিশুকে টিকা না দিলে বাবা-মাকে গুনতে হবে জরিমানা

এই লেখাটি 35 বার পঠিত

অস্ট্রেলিয়াতে শিশুদের টিকাদানে অভিভাবকদের উদ্বুদ্ধ করতে নতুন নিয়ম চালু করেছে সরকার। সন্তানকে টিকা দেওয়া না হলে প্রতি মাসে দুবার করে জরিমানা করা হবে বাবা-মাকে।

অস্ট্রেলিয়াতে যেসব পরিবারের আয় বছরে ৫৯,১০০ ডলারের মতো, তাদেরকে ফ্যামিলি ট্যাক্স বেনিফিট পার্ট এ নামের একটি ভাতা দেওয়া হয়। শিশুকে সময়মতো টিকা দেওয়া না হলে প্রতি দুই সপ্তাহে ওই ভাতা থেকে ২১ ডলার করে কেটে নেওয়া হবে।

১ জুলাই থেকে এই নিয়ম কার্যকরী হয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়, জানিয়েছেন দেশটির সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ড্যান তেহান। খবর আইএফএলসায়েন্স।

ওই মন্ত্রী আরও জানান, বিভিন্ন রোগ থেকে শিশুদের নিরাপদ রাখার সবচেয়ে নিরাপদ উপায় হলো টিকাদান। যেসব অভিভাবক নিজের সন্তানকে টিকা দিচ্ছেন না তারা নিজের শিশু তো বটেই, অন্যের শিশুকেও ঝুঁকির মুখে ফেলছেন।’

বিভিন্ন দেশে টিকাদান নিশ্চিত করতে বিভিন্ন নিয়ম প্রচলিত রয়েছে। যেমন যুক্তরাষ্ট্রে টিকা দেওয়া না থাকলে শিশুকে স্কুলে যোগদান করতে দেওয়া হয় না।

কিছু কিছু শিশু স্বাস্থ্যগত কারণেই টিকা নিতে পারে না। কিন্তু বাকি শিশুরা টিকা নেওয়া থাকলে তারাও ওই রোগ থেকে নিরাপদ থাকে। একে বলা হয় হার্ড ইমিউনিটি। কোনো শিশুকে ইচ্ছে করে তার অভিভাবক টিকা না দিয়ে থাকলে হার্ড ইমিউনিটি কমে যায় এবং ওই নিরীহ শিশুটিও ঝুঁকিতে পড়ে যায়। এ কারণে টিকাদান এত জরুরি।

অনেক বাবা-মা ইদানিং ‘অ্যান্টি–ভ্যাক্সার’ হয়ে পড়েছেন। টিকার বিরুদ্ধে কুসংস্কারে বিশ্বাস করে তারা শিশুদের টিকা দিচ্ছেন না। এমন মানুষের কারণে যাতে শিশুরা ক্ষতিগ্রস্ত না হয় তার কারণেই এমন জরিমানার ব্যবস্থা করেছে অস্ট্রেলিয়া।

টিকাদানের ব্যাপারে সবসময়েই অটল থেকেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। ২০১৫ সাল থেকে ধর্মীয়, তাত্ত্বিক বা দার্শনিক কারণে বাচ্চাকে টিকা দেওয়া থেকে কেউ আটকাতে পারে না দেশটিতে। এ ছাড়া টিকা দেওয়া না থাকলে সে শিশুকে শিক্ষাকেন্দ্র এবং ডে কেয়ার সেন্টারেও নেওয়া হবে না। ২০১৬ সাল থেকে টিকা না দেওয়া শিশুদের বাবা-মা ৫৪৪ ডলার পরিমাণের এক চাইল্ড বেনিফিট পেমেন্ট থেকে বঞ্চিত হবার নিয়ম চালু হয়।

এসব নিয়মের ফলে ২৪৬,০০০ শিশুর টিকাদান নিশ্চিত করা হয়। দেশটিতে টিকা দেওয়া শিশুর পরিমাণ পৌঁছায় ৯২.২ শতাংশে।

Aviation News