হেলিকপ্টারে করে জেল থেকে পালালেন এক গ্যাংস্টার

এই লেখাটি 35 বার পঠিত

ফ্রান্সে দুর্ধর্ষ এক অপরাধী রাজধানী প্যারিসের সুরক্ষিত একটি জেলখানা থেকে হেলিকপ্টারে করে পালিয়ে গেছে।

ফরাসী কর্তৃপক্ষ বলছে, রেদোয়ান ফেইদ নামের এই গ্যাংস্টারের তিনজন সশস্ত্র সহযোগী একটি হেলিকপ্টার নিয়ে জেলখানার ভেতরে অবতরণ করেন এবং তাকে নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যান।

রেদোয়ান ফাইদের বয়স ৪৬। ব্যর্থ এক ডাকাতির অভিযোগে তার ২৫ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল। ডাকাতির ওই ঘটনার সময় পুলিশের একজন কর্মকর্তা নিহত হয়।

হেলিকপ্টার নিয়ে জেল থেকে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা সিনেমার নাটকীয়তাকেও হার মানিয়েছে এবং এই ঘটনায় ফরাসী পুলিশের কর্মকর্তারা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন।

 

রেদোয়ান ফাইদ এর আগেও আরেকবার জেল থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন। সেটা ছিল ২০১৩ সালের ঘটনা। চারজন কারারক্ষীকে জিম্মি করে এবং তাদেরকে মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এবং একের পর এক দরজা ভেঙে জেল থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন ফেইদ।

রেদোয়ান ফেইদকে ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলীয় একটি কারাগারে নিয়ে আসার আধা ঘণ্টার মধ্যেই তিনি কারাগার থেকে পালিয়ে গেলেন।

এই কারাগার থেকেই পালিয়ে যান রেদোয়ান ফেইদ। ছবি: এএফপি
এই কারাগার থেকেই পালিয়ে যান রেদোয়ান ফেইদ। ছবি: এএফপি

প্যারিসের একটি শহরতলি, যেখানে প্রচুর অপরাধের ঘটনা ঘটতো। এ রকম একটি এলাকায় বড় হয়েছেন ফাইদ। সেখানে বেড়ে ওঠা এবং নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৯ সালে একটি বই লিখেছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। সেখানে তিনি বর্ণনা করেছেন যে কীভাবে তিনি একটু একটু করে অপরাধের জগতে ঢুকে পড়েছিলেন।

পরে অবশ্য তিনি দাবি করেছিলেন যে, অপরাধের জগত থেকে তিনি বেরিয়ে এসেছেন। কিন্তু তার এক বছর পরেই ব্যর্থ এক ডাকাতির চেষ্টার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে তাকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

ইউরোপ ১ নামে ফরাসী সংবাদ ওয়েবসাইটে বলা হয়, এই পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

জেলখানার ভেতর থেকে উড়ে চলে যাওয়ার পর হেলিকপ্টারটিকে পরে গেনেজে এলাকাতে চলে যায়। স্থানীয় পুলিশ জানায় যে হেলিকপ্টারটি পুড়ে গেছে।

রেদোয়ান ফেইদের জীবন ও অপরাধ

ফেইদের জন্ম ১৯৭২ সালে। ১৯৯০ এর দশকে তিনি একটি অপরাধী চক্রকে নেতৃত্ব দিতেন। এই গ্রুপটির সদস্যরা রাজধানী প্যারিসে ডাকাতি ও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত ছিল। সশস্ত্র ডাকাতির বেশ কয়েকটি ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে ২০০১ সালে রেদোয়ান ফাইদের ৩০ বছরের সাজা হয়েছিল।

প্যারোলের শর্ত ভঙ্গ করায় ২০১১ সালে তাকে পুনরায় জেলে ফিরিয়ে আনা হয়। তারপর ২০১৩ সালে তিনি জেল থেকে পালিয়ে যান। এই জেল পালানোর অপরাধে তাকে ২০১৩ সালে আরও দশ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আর এ বছরের এপ্রিল মাসে ২০১০ সালের সশস্ত্র এক ডাকাতির দায়ে তাকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Aviation News