রেজরের বিজ্ঞাপনে লোমশ নারী মডেল নিয়ে এত বিতর্ক

এই লেখাটি 33 বার পঠিত

‘শরীরের লোম। সবার শরীরেই লোম আছে।’ এটা একেবারে সোজাসাপ্টা কথা। কিন্তু মেয়েদের রেজরের বিজ্ঞাপনের এই কথাগুলো ব্যাপক বিতর্ক তৈরি করেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই বিজ্ঞাপনে আসলে মেয়েদেরকে রেজর দিয়ে তাদের শরীরের লোম শেভ করতে দেখা যাচ্ছে। কিন্তু এতে এমন বৈপ্লবিক কী আছে যে, এটি নিয়ে এত তর্ক-বিতর্কের ঝড় উঠেছে?

এতদিন ধরে মেয়েদের রেজরের বিজ্ঞাপন যারা দেখেছেন, তারা জানেন পার্থক্য কোথায়। মেয়েদের রেজরের বিজ্ঞাপনে যারা মডেল, তাদের শরীরের ত্বক সবসময় মসৃণ, নির্লোম। এমনকি বাস্তবে যা নয়, এই মডেলদের এয়ারব্রাশ করে তার চেয়েও নাকি বেশি মসৃণ, মোলায়েম আর নির্লোম হিসেবে উপস্থাপন করা হয়।

মেয়েদের রেজর ব্র্যান্ড বিলি জানায়, গত একশ বছরের মধ্যে এই প্রথম কোনো রেজরের বিজ্ঞাপনে তারা যে লোমশ নারীকে মডেল হিসেবে ব্যবহার করেছে, সেটি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বিজ্ঞাপনে মডেলের পা, বগল এমনকি পেটের লোম ক্লোজ আপে দেখানো হয়েছে। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়েদের অনেকেই এর ব্যাপক প্রশংসা করেছেন।

‘দিস ইজ ড্যাম বিউটিফুল’, ইনস্টাগ্রামে মন্তব্য করেছেন একজন। তিনি লিখেন, ‘আমি রেজর পছন্দ করি না, কিন্তু এই বিজ্ঞাপনটা এত দারুণ।’

বিজ্ঞাপনে লোমশ নারীকে মডেল হিসেবে ব্যবহারের কারণ ব্যাখ্যা করে বিলির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা জর্জিনা গুলি গ্ল্যামার ম্যাগাজিনকে বলেন, ‘ব্র্যান্ডগুলো যখন এ রকম একটা ভান করে যে, মেয়েদের শরীরে যেন কোনো লোম নেই। তখন তারা আসলে মেয়েদের শরীরকে নিয়ে বিদ্রূপ-সমালোচনার কাজটাকেই উৎসাহিত করছে। তারা যেন বলছে, তোমার শরীরের লোম নিয়ে তোমার লজ্জা পাওয়া উচিত।’

বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি অনলাইনে একটি প্রচারণাও শুরু করেছে এই কোম্পানি, যেখানে লোমশ নারীদের ছবি ব্যবহার করে সেটাকে স্বাভাবিক হিসেবেই দেখানো হয়েছে।

অবশ্য মেয়েদের শরীরের লোম নিয়ে যে এক ধরনের লজ্জা-সংকোচ, সেটা কাটিয়ে তোলার দায়িত্ব কেন একটা রেজর কোম্পানি নিচ্ছে, সে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের লেখক র‍্যাচেল হ্যাম্পটন এক ওয়েবসাইটে লিখেন, ‘এটা সত্য যে এই বয়সে এসে আরও অনেকের মতো আমিও মসৃণ লোমহীন পা পছন্দ করি। কিন্তু যদি ১১ বছর বয়সের মধ্যেই আমার মাথায় এই ধারণা গেঁথে দেওয়া না হতো যে, মেয়েদের শরীরে লোম থাকা মানে খারাপ কিছু, তাহলে হয়তো আমি এই লোম কামানোর কাজটাই শুরু করতাম না! যে কোম্পানি রেজর বিক্রি করছে, তারা কি দাবি করতে পারবে যে, এই পুরো ব্যাপারটার পেছনে তাদেরও দায় আছে?’

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Aviation News