নাইজেরিয়ার ফুটবলারকে হত্যার ‘হুমকি’

এই লেখাটি 67 বার পঠিত

রাশিয়া বিশ্বকাপে তিন ম্যাচে এক জয় ও দুই হার নিয়ে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয় নাইজেরিয়া। শেষ ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে শুধু ড্র করলেই দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারত তারা। কিন্তু শেষ মুহূর্তে আর্জেন্টিনার ডিফেন্ডার মার্কোস রোহোর গোলে ২-১ গোলের পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় আফ্রিকার দেশটিকে। বিশ্বকাপে তাদের এই ব্যর্থতায় ক্ষুদ্ধ সমর্থকরা। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে হারের পরপরই তাদের একজন মৃত্যুর ‘হুমকি’ দিয়েছেন নাইজেরিয়ার খেলোয়াড় ওডিওন ইগোলাকে।

প্রথম রাউন্ডের সেই ম্যাচের ৮৪ মিনিট পর্যন্ত আর্জেন্টিনাকে ১-১ গোলে আটকে রেখেছিল নাইজেরিয়া। এর মাঝে কয়েকবারই সুযোগ পায় ব্যবধান বাড়ানোর। ম্যাচের ৭৪ মিনিটে ফাঁকা ডিবক্সের মধ্যে সুযোগ পেয়েও গোল করতে পারেননি ওডিওন ইগোলা। এই জন্য ম্যাচ শেষে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তার স্ত্রীকে বিদ্রূপ করতে থাকেন নাইজেরিয়ার সমর্থকরা।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে হত্যার হুমকির বিষয়ে ইগোলা বলেন, ‘যে আমাকে হত্যা করতে চায়, তাকে বলছি দেখুন, আমি একজনের সন্তান। বিশ্বকাপে আমরা সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করেছি। কিন্তু সবসময় আপনি যেটা চান, সেটা নাও হতে পারে। তাই বলে জীবন থেমে থাকবে না।

আমি নিজের সেই ভুলের জন্য ক্ষমা চাচ্ছি নাইজেরিয়া সমর্থকদের কাছে। এই ম্যাচে হারার জন্য আমিই দায়ী। আমি যদি সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারতাম, তাহলে অন্য কিছু ঘটতে পারত। এই দিনটা আমার ও আমার দেশের জন্য খুবই খারাপ ছিল।’

খেলোয়াড়দের হত্যার হুমকির বিষয়ে নাইজেরিয়ার ফুটবল ফেডারেশনের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা বুঝতে পারছি আর্জেন্টিনার বিপক্ষে হার ও নকআউট পর্বে যেতে না পারায় সমর্থকরা অনেক কষ্ট পেয়েছে। কিন্তু আমাদের খেলোয়াড় ও তাদের সহধর্মিণীকে হত্যার হুমকি দেওয়া হলে আমরা সরাসরি তা পুলিশের কাছে অভিযোগ করব।’

সূত্র: সিএনএন

Aviation News