বিমানের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বাড়াতে আসছে আরও একটি ড্যাশ

এই লেখাটি 87 বার পঠিত

অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক রুটে যাত্রী চাহিদা বাড়লেও রুটগুলোতে ফ্লাইট বাড়াতে পারছে না রাষ্ট্রায়ত্ত আকাশ পরিবহন সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। বর্তমানে বিমানবহরে থাকা দুটি ড্যাশ উড়োজাহাজ দিয়ে অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক রুট চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিমানকে।

এ বাস্তবতায় অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক রুটে ফ্লাইট নির্বিঘ্ন করতে কানাডা থেকে লিজে ড্যাশ-৮ মডেলের একটি উড়োজাহাজ আনার প্রক্রিয়া চলছে। এমন তথ্য জানিয়েছেন সংস্থাটির মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস’র ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আশরাফুল আলম।

তিনি জানান, ৭৪ আসন বিশিষ্ট ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজটি লিজে সংগ্রহ করতে গত মে মাসে চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বরে বিমানের বহরে যুক্ত হবে উড়োজাহাজটি। জাহাজটি বহরে যুক্ত হলে অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক রুটে ফ্লাইট কিছুটা নির্বিঘ্ন হবে।

বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, একটি উড়োজাহাজ রক্ষণাবেক্ষণে পাঠালে আমরা বিপদে পড়ে যাই। ফ্লাইট কমাতে হয়। উড়োজাহাজটি বহরে যুক্ত হলে অনেক সুবিধা হবে।

তিনি আরও বলেন, উড়োজাহাজটি যুক্ত হলে অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক রুটের ফ্লাইটের সংখ্যা আরও বাড়ানো সম্ভব হবে।

জানা গেছে, বর্তমানে বিমানবহরে থাকা দুটি ড্যাশ উড়োজাহাজ দিয়ে সাতটি অভ্যন্তরীণ ও দুটি আঞ্চলিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা হচ্ছে। বর্তমানে রাজশাহী রুটে বিমানের সপ্তাহে চারটি ফ্লাইট চলে। নতুন উড়োজাহাজ যুক্ত হলে এ সংখ্যা সাতে উন্নীত করা যাবে। সৈয়দপুরে চারটির পরিবর্তে ১৪টি, যশোরে আটটি থেকে বাড়িয়ে ১৪টি ফ্লাইট করা যাবে। এছাড়া সৈয়দপুর থেকে কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চালু হবে। পাশাপাশি আঞ্চলিক রুট ইয়াঙ্গুন ও কলকাতার ফ্লাইটও বাড়বে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছর আগস্ট ও নভেম্বরের মধ্যে বিমানের বহরে যুক্ত হবে দুটি বোয়িং ৭৮৭-৮ (ড্রিমলাইনার) উড়োজাহাজ। বিমানে বর্তমানে রয়েছে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এবং দুটি ড্যাশ-৮ কিউ ৪০০ উড়োজাহাজ। এসব উড়োজাহাজ দিয়ে ১৫টি আন্তর্জাতিক ও সাতটি অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে বিমান।

Aviation News