এভিয়েশনে উৎসাহ দিতে ১২০ কিশোরীকে নাসায় বেড়াতে নিলো ডেল্টা এয়ারলাইন্স

এই লেখাটি 189 বার পঠিত
191011073831-girls-in-aviation-delta-191006

এভিয়েশনে উৎসাহ দিতে ১২০ কিশোরীকে নাসায় বেড়াতে নিলো ডেল্টা এয়ারলাইন্স।

যুক্তরাষ্ট্রের উটাহ অঙ্গরাজ্যের সল্ট লেক সিটি থেকে টেক্সাসের হাউস্টন শহরে প্রতিদিন চলাচল করে ডেল্টা এয়ার লাইনসের উড়োজাহাজ। এর মধ্যে একটি ফ্লাইট ছিল কিছুটা অন্যরকম। এভিয়েশনে উদ্বুদ্ধ করতে বিমানটিতে শুধু কিশোরীদের নেওয়া হয়। তারা সংখ্যায় ছিল ১২০। আর তাদের বয়স ১২ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে।

গত ৫ অক্টোবর ছিল আন্তর্জাতিক গার্লস ইন এভিয়েশন দিবস। এ উপলক্ষে ১২০ কিশোরীকে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার জনসন স্পেস সেন্টারে নিয়ে যায় ডেল্টা এয়ার লাইনস। আমেরিকার এই বিমান সংস্থা এক বিবৃতিতে জানায়, পুরুষশাসিত এভিয়েশন শিল্পে আরও বেশিসংখ্যক নারীকে যুক্ত হতে উৎসাহ প্রদানের জন্য তাদের এমন উদ্যোগ।

এসব মেয়েরা এসটিইএম (সায়েন্স টেকনোলজি ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যাথ) বিষয়ক স্কুলের শিক্ষার্থী। নাসার মিশন কন্ট্রোল ঘুরে দেখেছে তারা। এরপর নভোচারী ও মহাকাশযান প্রকৌশলী জিনেট এপসের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ করে কিশোরীরা।

ফ্লাইটটির পাইলট থেকে শুরু করে কেবিন ক্রুসহ সবাই ছিলেন নারী। এছাড়া উড়োজাহাজ পার্কিংয়ে র‌্যাম্প এজেন্ট ও বিমানবন্দরে গেট এজেন্টের দায়িত্বে ছিলেন মেয়েরা। কন্ট্রোল টাওয়ারে বসে পাইলটদের নির্দেশনা দিয়েছেন নারীরাই।

ডেল্টা এয়ার লাইনস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের মোট পাইলটের মাত্র ৫ শতাংশ নারী। তাই ২০১৫ সালে প্রকল্পটি চালু করেন এই বিমান সংস্থার পাইলট ডেভেলপমেন্টের মহাব্যবস্থাপক বেথ পুল। তিনি বলেন, ‘এভিয়েশনে লিঙ্গ বৈচিত্র্যে উন্নতি আনতে অল্প বয়সী মেয়েদের উদ্বুদ্ধ করছি। এখন থেকে দশ বছর পর তারা যেন ডেল্টার ককপিটে বসে দায়িত্ব পালন করে সেই পাইপলাইন বানানো আমাদের উদ্দেশ্য। অন্য নারীদের জন্যও অনুপ্রেরণা হবে তারা।’

আন্তর্জাতিক গার্লস ইন এভিয়েশন দিবস বিশ্বব্যাপী উদযাপন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়ার পাশাপাশি আফ্রিকা, এশিয়া ও ইউরোপ মহাদেশের রাষ্ট্রগুলোতেও দিনটি উপলক্ষে ছিল বিভিন্ন কর্মসূচি।

সূত্র: সিএনএন

Aviation News