‘ব্রাজিল বাড়ি’ পরিদর্শনে ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত

এই লেখাটি 43 বার পঠিত

সেলেসাওদের সমর্থনে বাংলাদেশেই গড়ে উঠেছে এক টুকরো ব্রাজিল। যাদের দেশেও ওড়ে না এত পতাকা, দেখা মিলেনা এতো উচ্ছাস, এতো আনন্দ। কিন্তু সেই ব্রাজিল ফুটবল দলের ভালবাসাকে বুকে ধারন করে বাংলাদেশের পতাকাকে গোটা বিশ্বের কাছে উদয় করলো এক তরুন ভক্ত। হ্যাঁ বলছি সেই আলোচিত নারায়ণগঞ্জের জয়নাল আবেদিন টুটুলের ব্রাজিল বাড়ির কথা। যে ৬ তলা বাড়িটির পুরোটাই সুশোভিত হয়েছে ব্রাজিলের পতাকার রঙে। বাড়ির ছাদে উড়ছে বড় বড় পতাকা। বাড়ির প্রধান ফটকে লেখা রয়েছে ‘ব্রাজিল বাড়ি’।

বাড়ির ভেতরটাও ব্রাজিলের পতাকার রঙে রাঙানো। ড্রইং রুমে রয়েছে ব্রাজিলের বিভিন্ন তৈজসপত্র ও স্যুভেনির। ব্রাজিলের কিংবদন্তি খেলোয়াড়দের পোস্টার টাঙানো বাড়ির দেয়ালজুড়ে। রয়েছে ব্রাজিলের পতাকার বাঁধাই করা ফটোফ্রেম ও খাবারের প্লেটও। ইতমধ্যেই দেশজুড়ে ফুটবল ভক্তদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এ বাড়িটি। যেখানে যে কেউ প্রবেশ করলেই মনে হবে এ যেন ব্রাজিলেরেই কোন এক শহর। যেখানে ব্রাজিলিয়ানরা খুঁজে পেয়েছে বাংলাদেশে আরেক ব্রাজিল!

আর তাইতো এ দৃশ্যগুলো নিজ চোখে দেখতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল­ার লালপুরে এসেছেন ঢাকায় নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জোয়াও তাবাজারা ডি অলিভিরা জুনিয়র। আজ ২২ই জুন শুক্রবার দুপুর ২টায় জয়নাল আবেদিন টুটুলের ব্রাজিল বাড়িতে তিনি আসেন। এবং এখানেই সন্ধ্যায় ব্রাজিল ও কোস্টা রিকার মধ্যকার খেলা উপভোগ করেন।

নারায়ণগঞ্জের ব্রাজিল বাড়িতে এসে ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জোয়াও তাবাজারা সাংবাদিকদের জানান, এই প্রথমবারের মত কোথাও আমি এমন দেখছি যে, ব্রাজিলের ফুটবল দলের প্রতি এমন ভালোবাসা। আমি সত্যিই আনন্দিত, অভিভূত। এখানে এসে নিজের এক টুকরো দেশ মনে হচ্ছে। আর মনে হচ্ছে টুটুল আমার একজন বাংলা বন্ধু।

এদিকে সেলেসাওদের নিয়ে খুশির উৎসবে মেতেছে পুরো এলাকা। তাদের উপস্থিতির খবর ছড়িয়ে পড়ায় ব্রাজিল ফুটবল সমর্থকদের আনন্দ বেড়ে দ্বিগুন হল। উপস্থিত অধিকাংশের পরনে ছিলো ব্রাজিলের পোশাক, কেউ বা গালে ঠোটে একেছেন ব্রাজিলের পতাকা। খেলা দেখার জন্যও করা হয়েছে ব্যপক আয়োজন। মানুষ বসে যাতে খেলা দেখতে পারে এজন্য আসনের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। বিশাল কেক কেটার মধ্য দিয়ে খেলা শুরুর আগেই ব্রাজিল সমর্থকদের গেট টুগেদার অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও বাংলাদেশের এমন দৃশ্যকে ধারণ করতেই ব্রাজিলের গ্লোবো টিভির একদল সাংবাদিক এখানে এসে পৌছেছেন। তারাও তাদের মত করে কাজ গুছিয়ে নিচ্ছেন। কথা বলছেন ব্রাজিল ফুটবল প্রেমী টুটুল ও তার পরিবারের সাথে।

এ প্রসঙ্গে টুটুল জানায়, ফুটবল খেলার প্রতি ভালোবাসা এবং ব্রাজিল দলের প্রতি একনিষ্ঠ সমর্থন থেকেই নিজের বাড়ির নাম রেখেছেন ব্রাজিল বাড়ি। একসময়কার বিশাল এক পতাকা থেকেই এই উৎসাহ জাগায় এলাকাবাসী। এরপর সর্বপ্রথম নিজ দুই তলা বাড়িটিকে ব্রাজিলের রঙে সাজিয়ে তুলে। যা পরবর্তিতে এখন ৬তলা ভবন হয়েছে।টুটুল নোয়াখালীর ছেলে , সে বর্তমানে একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন।

অন্যদিকে ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত ও সাংবাদিকদের আগমনিতে নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ঢেকে দেয়া হয়েছে পুরো এলাকা। রয়েছে পুলিশ, র‌্যাব সহ সাদা পোশাকে আইন শৃঙ্খলা নিরাপত্তা বাহিনির সদস্যরা।

এ ব্যপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সরফুদ্দিন সময়ের কন্ঠস্বরের প্রতিবেদককে জানায়, আমরা গত রাত থেকেই সকল পরিকল্পনা করে রেখেছি। সকাল থেকেই পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যরা এখানে দায়িত্ব পালন করছেন। আমরা তাদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছি।

Aviation News