ঢাকার বাজারে ৬০ টাকার নিচে সবজি নেই

এই লেখাটি 33 বার পঠিত
maxresdefault (3)

ঢাকার বাজারে ৬০ টাকার নিচে সবজি নেই।

রাজধানীর অধিকাংশ কাচাবাজারে ৬০ টাকার নিচে কোনো সবজি নেই বললেই চলে। ব্যবসায়ীদের দাবি পাইকারি বাজারে সবজির দাম বেশি তাই খুচরা বাজারে এর প্রভাব পরেছে।

শুক্রবার সকালে মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট ও রায়েরবাজার গিয়ে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

খুচরা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার যে সবজি ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে সেই সবজির দাম শুক্রবার পাঁচ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

ঢেঁড়স ১০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়, বরবটি ৫৫ টাকা, বেগুন ৬৫ টাকা, পটল ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, গাজর ৭০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৬০ টাকা, করল্লা ৮০ টাকা, কাকরোল ৬৫ টাকা, টমেটো ৫৫ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, শসা কেজি প্রতি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, কাঁচামরিচ ৯০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া প্রতি পিস লাউ ৫০-৭০ টাকা, জালি কুমড়া ছোট ৪০ থেকে ৫০ টাকা আর বড়গুলো বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা দরে।

বাজার করতে আসা মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন বলেন, ‘আমি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি। সপ্তাহে শুক্রবার ছুটি থাকায় বাজার করতে আসি। কিন্তু এসে দেখি সব কিছুর দাম বেশি। এমনকি আগে দামাদামি করলে ৩ বা ৫ টাকা কমাতো দোকানদাররা। কিন্তু আজ কম রাখছেন না। এক দামেই বিক্রি করছেন।  এটা দেখে কিছুটা অবাক লাগছে।’

তিনি বলেন,  আমি সব সময় মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে বাজার করি। কারণ এখানে দাম কিছুটা কম থাকে। কিন্তু আজ এসে দেখি ৫৫ বা ৬০ টাকার নিচে কোনো সবজি নেই।

এদিকে এক কেজির বেশি ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে এক হাজার ২০০ টাকায়। আর এক কেজির কম ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকায়।  তবে অধিকাংশ ব্যবসায়ী ইলিশ মাছ জোড়া হিসেবে বিক্রি করছেন। জোড়া প্রকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে এক হাজার ৪০০ টাকা পর্যন্ত।

এছাড়া রুই মাছ কেজি প্রতি ২৩০ থেকে ২৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১৩০ টাকা, শিং মাছ আকার ভেদে ৪০০ থেকে ৬০০টাকা কেজি এবং চিংড়ি মাছ ৬০০ থেকে এক হাজার টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

গরু মাংস ৫৫০ টাকা কেজি, খাসি ৭৫০ এবং বয়লার মুরগি কেজি ১৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

Aviation News