আমি খুব লাকি : সামিয়া আক্তার অথৈ

এই লেখাটি 200 বার পঠিত

লাক্স সুপারস্টার ২০১৮-এর প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় রানারআপ সামিয়া আক্তার অথৈ। এসব বিষয় ও অন্যান্য কাজ নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গে।

শুনলাম নাটকে কাজ করছেন-

বাশার জর্জিসের পরিচালনায় ১০ পর্বের একটি নাটকে কাজ করছি। নাটকের নাম ‘চিলেকোঠার গল্প’। এ ছাড়া রেজানুর রহমানের পরিচালনায় ‘চাঁদ উঠেছে ফুল ফুটেছে’ নাটকে কাজ করবো। ২৬ মে উত্তরায় এর শুটিং শুরু হবে। এটি আগামী ঈদে চ্যানেল আইতে প্রচারিত হবে।এখানে আমি সজল ভাইয়ের বিপরীতে কাজ করবো।

সজলের সঙ্গে কি এটা প্রথম কাজ?

হ্যাঁ, সজল ভাইয়ের সঙ্গে এটা আমার প্রথম কাজ। শুধু তাই নয়,এই নাটকে অভিনয়ের সুবাদে তার সঙ্গে আমার প্রথম দেখাও হবে। তার নাটক অনেক দেখেছি। এখন তার কো-আর্টিস্ট হিসেবে আমি কাজ করবো। আমার ভালো লাগছে। সজল ভাই অনেক বেশি রোমান্টিক।

আপনি আগেও মিডিয়াতে কাজ করতেন। এবার লাক্স প্রতিযোগিতার প্ল্যাটফর্ম পেয়েছেন। জীবনে পরিবর্তন কেমন লক্ষ করছেন?

আমি আগে ওইভাবে কাজ করিনি। টুকটাক যেটুকু করেছি শেখার জন্যই করেছি। আমার স্বপ্নই ছিল এই প্ল্যাটফর্মে আসবো। এমন একটা প্ল্যাটফর্মে আসলে নিজের মেধা বা যোগ্যতা বোঝা যায়। আমি কতটা পারদর্শী। গ্রুমিং বা শেখা, ওই জায়গাটা থেকে আসলে নতুন করে এখন শুরু করা।

বলতে পারেন আমি নতুন করে আবার শুরু করলাম। আগে যেহেতু শেখা ছিল না। তখন দেখে দেখে বা চিন্তা করে অল্প কাজ করেছি। এখন কিন্তু তা নয়। কিছুটা হলেও এখন শিখেছি। আমার দায়িত্বও অনেক বেড়ে গেছে। অনেকেই আমার দিকে তাকিয়ে আছে। তাই দায়িত্ব থেকেই ভালো কাজ করতে হবে। সবার জন্যই ভালো কাজ করতে হবে। এমন একটা জায়গা থেকে আসছি, আমার জায়গা থেকে আমাকে ভালো ফিডব্যাক দিতে হবে।

লাক্স প্রতিযোগিতার সঙ্গে কীভাবে জড়িত হলেন?

ছোটবেলা থেকে লাক্স দেখতাম। মম আপু, বিদ্যা সিনহা মিম ও মেহজাবিন আপুদের প্রতিযোগিতা দেখেছি। তখন আমি অনেক ছোট ছিলাম। কিন্তু আমি নিয়মিত লাক্স দেখতাম। তখন থেকেই আমি চিন্তা করতাম সবাই সাধারণ থেকে অসাধারণ হয়েছেন। এই প্রতিযোগিতায় সাধারণ হয়ে অংশ নিয়ে অসাধারণ হয়ে বের হচ্ছে। এখানে গ্রুমিংটা খুব কাজে লাগে। একটা সাধারণ মেয়ে অসাধারণ হয়ে ওঠে এই প্ল্যাটফর্ম থেকে। তখন মনে হতো উনারা যদি পারে আমি কেন পারবো না?

২০১২ সালে লাক্সে আসার ইচ্ছে ছিল কিন্তু আব্বু, আম্মু একদম রাজি ছিল না। কারণ আমি তখন ছোট ছিলাম। হঠাৎ একদিন আম্মু এসে আমাকে বললো ‘তুমি রেজিস্ট্রেশন করোনি’? আম্মু যখন বললো তখন আমি রেজিস্ট্রেশন করলাম। এত হাজার মেয়ে রেজিস্ট্রেশন করেছে এর মধ্যে আমার রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ছিল ০০১।আমিই প্রথম মেয়ে যে, সবার আগে রেজিস্ট্রেশন করেছি। আমি খুব লাকি। আমার মনে হয় একটা মেয়ে স্বপ্ন পূরণের জন্য এমন একটি প্ল্যাটফর্ম খুব দরকার।

পরিকল্পনা কী?

তেমন কোনো পরিকল্পনা করিনি এখনও। তবে বেছে বেছে ভালো কাজ করবো। সব কাজই আমাকে করতে হবে এমন নয়। যে কাজগুলো আমার সঙ্গে যায় বা যে স্ক্রিপ্ট আমার ভালো লাগবে সেই কাজগুলোই করবো। গল্পভিক্তিক কাজগুলো বেশি করতে চাই। যেহেতু আমার অভিনেত্রী হওয়ারই স্বপ্ন, তাই নাটক, সিনেমা যেটাই হোক না কেন আগে শিখতে চাই। নিজের আরও উন্নতি করতে চাই। তার পর হয়তো বড় পর্দায় কাজ করবো। যদি ভালো কোনো স্ক্রিপ্ট পাই, ভালো পরিচালকের কাজ হয় তবে কাজে আপত্তি নেই। আমি একজন ভালো অভিনেত্রী হতে চাই। আর সবশেষে একজন ভালো মানুষ হতে চাই।

Aviation News