নিখোঁজ ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ খোঁজার চুক্তি খতিয়ে দেখবে মালয়েশিয়া

এই লেখাটি 57 বার পঠিত

মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের নিখোঁজ যাত্রীবাহী ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ খুঁজতে নিয়োগ করা মার্কিন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি পর্যালোচনা করা হবে জানিয়ে এর ইতিও ঘটতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন মালয়েশিয়ার নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।
১০ মে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর বুধবার মন্ত্রীসভার প্রথম বৈঠকের পর এসব কথা জানিয়েছেন মাহাথির, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

২০১৪ সালের ৮ মার্চ কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং যাওয়ার পথে ২৩৯ জন যাত্রীসহ ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ নিখোঁজ হয়ে যায়, যা বিশ্বের বিমান চলাচলের ইতিহাসে সবচেয়ে রহস্যময় ঘটনাগুলোর মধ্যে অন্যতম হয়ে আছে।

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রশাসন চলতি বছরের জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টনভিত্তিক বেসরকারি কোম্পানি ওশেন ইনফিনিটির সঙ্গে একটি চুক্তি করেছিল যা আসছে জুনে শেষ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। চুক্তিতে দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে নিখোঁজ বিমানটির সন্ধান পাওয়া গেলে কোম্পানিটিকে সাত কোটি ডলার দেওয়ার কথা ছিল।

এ প্রসঙ্গে মাহাথির বলেছেন, “এর (অনুসন্ধানের) বিস্তারিত, প্রয়োজনীয়তা জানতে চাই আমরা। যদি দেখি এর কোনো প্রয়োজন নেই তাহলে (চুক্তি) নবায়ন করবো না। চুক্তিটি পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে। দরকারি না হলে এটি বাতিল করা হবে।”

মালয়েশিয়ার ঋণের মাত্রা পর্যালোচনা করার পর সরকারি ব্যয় কমানোর পদক্ষেপ নিয়েছে মাহাথিরের প্রশাসন। তার অংশ হিসেবেই চুক্তিটির বিষয়ে এ ঘোষণা এলো।

৯ মে মালয়েশিয়ার সাধারণ নির্বাচনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন বারিসান ন্যাসিওনাল জোটকে পরাজিত করে ফের ক্ষমতায় আসেন ৯২ বছর বয়সী আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।

গত বছর অস্ট্রেলিয়া, চীন ও মালয়েশিয়া ২০ কোটি অস্ট্রেলীয় ডলার ব্যয়ে ভারত মহাসাগরের এক লাখ ২০ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় নিষ্ফল অভিযান চালানোর পর ওশেন ইনফিনিটিকে কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মালয়েশিয়ার প্রশাসন।

১৫ মে, সাপ্তাহিক অনুসন্ধান আপডেটে ওশেন ইনফিনিটি জানিয়েছে, তারা এ পর্যন্ত ৮৬ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় অনুসন্ধান চালিয়েছে কিন্তু উল্লেখযোগ্য কিছু পায়নি।

মালয়েশিয়ার নতুন সরকারের প্রতি এমএইচ৩৭০-র নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবকিছু পর্যালোচনা করে দেখার আহ্বান জানিয়েছে নিখোঁজ ফ্লাইটটির যাত্রীদের স্বজনদের তৈরি করা গোষ্ঠী ‘ভয়েস ৩৭০’।

Aviation News