উড্ডয়নের সময় ইউএস-বাংলা প্লেনে যান্ত্রিক ত্রুটি

এই লেখাটি 113 বার পঠিত

সৈয়দপুর বিমানবন্দরে শনিবার বেলা ১১টার দিকে বেকায়দায় পড়ে ইউএস-বাংলার একটি উড়োজাহাজ। ঢাকার উদ্দেশে উড়াল দেয়ার আগে উড়োজাহাজে বিকট শব্দ হতে থাকে। এরপরও ইউএস-বাংলার ওই উড়োজাহাজ দু’বার উড্ডয়নের চেষ্টা করে। কিন্তু ব্যর্থ হয়ে উড়োজাহাজটি নিরাপদে টার্মিনালে ফিরে আসে। ফ্লাইটটিতে ৭৪ জন যাত্রীসহ মোট ৭৮ জন আরোহী ছিলেন। এর পৌনে তিন ঘণ্টা পর যান্ত্রিক ত্রুটি সারিয়ে ৫৮ জন আরোহী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে সৈয়দপুর বিমানবন্দর ত্যাগ করে উড়োজাহাজটি।

ইউএস-বাংলার এই ফ্লাইটের ঢাকা যাবার যাত্রী সৈয়দপুর সরকারী কারিগরি কলেজের শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, উড্ডয়নের আগে যাত্রীরা নিজ নিজ আসনে বসে পড়েন। বিমান ক্রুর নির্দেশনায় আমরা সিট বেল্ট বাঁধি। রানওয়েতে চলার সময় উড়োজাহাজটি বিকট শব্দ করতে থাকে। এভাবে দু’বার চেষ্টা করেও উড্ডয়নে ব্যর্থ হয়ে এটি ফিরে আসে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ট্যাক্সিক্যাবে।

পরে ইউএস-বাংলার টিকিট ফেরত দিয়ে অন্য এয়ারলাইন্সে ঢাকায় যাত্রা করেন আবুল কালাম আজাদ। তিনিসহ মোট ২০ জন যাত্রী টিকিট ফেরত দেন।

যান্ত্রিক ত্রুটির বিষয়টি স্বীকার করেন ইউএস-বাংলার সৈয়দপুর স্টেশন ইনচার্জ জাকির হোসেন। মুঠোফোনে সাংবাদিকদের বলেন, যে ধরনের কারিগরি ত্রুটি দেখা দিয়েছিল, সেটি শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। ত্রুটি সারিয়ে বেলা ২টা ৪০ মিনিটে ফ্লাইটটি আবার ঢাকায় রওনা দেয়। কী ধরনের ত্রুটি ছিল, তা জাকির হোসেনের কাছ থেকে জানা যায়নি। তবে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের একটি সূত্রে জানা গেছে, ড্যাশ-৮ মডেলের উড়োজাহাজটি এ্যাপ্রোচের জন্য যে পাওয়ার বা শক্তির প্রয়োজন, তা পাচ্ছিল না। তাই দু’বার উড্ডয়নে ব্যর্থ হয় এটি। পরে ঢাকা থেকে প্রকৌশলীরা এসে উড়োজাহাজটির ত্রুটি দূর করেন।

সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক মোঃ শাহীন আহমেদ বলেন, যান্ত্রিক ত্রুটি সারানোর পর ফ্লাইটটিকে উড্ডয়নের অনুমতি দেয়া হয়।

Aviation News