ঢাকাগামী যাত্রীদের সঙ্গে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের বর্ণবৈষম্যমূলক আচরণ!

এই লেখাটি 248 বার পঠিত

যুক্তরাষ্ট্র অফিস : ইতিহাদ এয়ারওয়েজের ফ্লাইট (EY-0102) বুধবার (16 May) দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে নিউইয়র্ক থেকে ছেড়ে যাবার কথা ছিল। এটি ছাড়তে বিলম্ব হয়েছে তিন ঘণ্টা। এ কারণে আবুধাবিতে ঢাকাগামী যাত্রীরা তাদের নির্ধারিত ফ্লাইটটি (EY-0258) ধরতে পারেননি। শত শত যাত্রীকে ১১ ঘণ্টা বিমানবন্দরে বসিয়ে রাখা হয়েছে। তারা অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। অথচ এভিয়েশন আইন অনুযায়ী, অপেক্ষমাণ সময় আট ঘণ্টার বেশী সময় হলে প্রত্যেক যাত্রীকে বিশ্রামের জন্য হোটেল দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।
 
আকাশজট, ট্রাফিক সিস্টেমে জটিলতাসহ যে কোনো কারণে ফ্লাইট বিলম্ব হতেই পারে। কিন্তু তাই বলে ১১ ঘণ্টা বসিয়ে রাখতে হবে? সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রীয় বিমান পরিবহন সংস্থা ইতিহাদ এয়ারওয়েজ তো ছোট কোনো কোম্পানি নয়। তাহলে যাত্রীদের সঙ্গে এ ধরণের অমানবিক আচরণ কেন?
 
দুর্ভোগের শিকার ইতিহাদের যাত্রী দৈনিক যুগান্তরের বিশেষ প্রতিনিধি মুজিব মাসুদসহ বেশ কয়েকজন যাত্রী জানিয়েছেন, ঢাকাগামী যাত্রীদের সঙ্গে শুধুই যে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে তা নয়, তাদের সঙ্গে বর্ণবৈষম্যমূলক আচরণ করেছে ইতিহাদ কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশি ছাড়া অন্যদের বেছে আলাদা করে হোটেল নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অথচ বাংলাদেশিরা সমান ভাড়া দিয়ে ইতিহাদের যাত্রী হয়েছেন। বাংলাদেশে তারা একচেটিয়া ব্যবসা করছেন।
 
এ ব্যাপারে ইতিহাদের ঢাকা অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে দায়িত্বশীল কাউকে পাওয়া যায়নি।
 
দুর্ভোগের শিকার যাত্রীরা এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

Aviation News