প্রতারণার শিকার হজযাত্রীদের ২০১৯ সালে ট্রান্সফার দেয়া হবে

এই লেখাটি 168 বার পঠিত

বেসরকারী হজ এজেন্সি আকবর হজ গ্রুপের প্রতারণার শিকার প্রায় ৪ হাজার হজযাত্রীকে আগামী হজের পরে ২০১৯ সনে অন্য হজ লাইসেন্সের মাধ্যমে হজে যেতে ট্রান্সফারের সুযোগ দেয়া হবে। আকবর হজ গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রতারক লুৎফর রহমান ফারুকীকে দেশে ফেরত এনে উপযুক্ত শাস্তি দিতে ধর্ম মন্ত্রণালয় সর্বাত্নক সহযোগিতা দিবে। হজ নিয়ে যে কোনো দুর্নীতি-প্রতারণা বরদাশত করা হবে না। সোমবার আকবর হজ গ্রুপের ক্ষতিগ্রস্ত গ্রুপ লিডাররা ধর্ম সচিব মো: আনিছুর রহমানের সাথে তার দপ্তরে দেখা করতে গেলে তিনি একথা বলেন। এসময়ে মন্ত্রণালয়ের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ন সচিব (হজ) মো: হাফিজ উদ্দিন, পরিচালক (হজ) সাইফুল ইসলাম, উপ-সচিব (হজ) মো: শরাফত জামান, বিজনেস অটোমেশন লিমিটেডের প্রধান সমন্বয়কারী ও সাবেক পরিচালক (হজ) বজলুল হক বিশ্বাস এবং গ্রুপ লিডারদের পক্ষে রওশন আলম কনকের নেতৃত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন বগুরার গ্রুপ লিডার মতিউর রহমান, আবু বকর সিদ্দিক, আব্দুর রকিব, হারুন উর রশিদ ও শিহাব উদ্দিন।

আকবর হজ গ্রুপের প্রতারণার শিকার প্রায় চার হাজার (২০১৮-২০১৯) সালের হজযাত্রীদের লুৎফর রহমান ফারুকীর ১৫টি হজ এজেন্সি থেকে পছন্দের যেকোনো হজ এজেন্সি ট্রান্সফারের দাবী জানান ক্ষতিগ্রস্ত গ্রুপ লিডাররা। ধর্ম সচিব আনিছুর রহমান অত্যান্ত ধৈর্য্যের সাথে তাদের কথা শুনেন। ধর্ম সচিব বলেন, আমরা চলতি বছরের হজ ব্যবস্থাপনার কার্যক্রম নিয়ে খুবই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছি। তিনি চলতি বছর প্রতারণার শিকার হজযাত্রীদের ট্রান্সফার দেয়ার সুযোগ নেই বলে জানিয়ে দেন। তবে ধর্ম সচিব আগামী হজের পর পর নিজ দায়িত্বে আকবর হজ গ্রুপের প্রতারণার শিকার এসব হজযাত্রীদের তাদের পছন্দের যেকোনো হজ এজেন্সিতে ট্রান্সফারের সুযোগ করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি প্রতারক লুৎফর রহমান ফারুকীকে দেশে ফেরত এনে উপযুক্ত শাস্তি দিতে প্রয়োজনীয় যেকোনো সহায়তার আশ্বাস দেন। সভায় আকবর হজ গ্রুপের কাছ থেকে হজযাত্রীদের পাওনা কোটি কোটি টাকা উদ্ধারের জন্য হাই কোর্টে রীট করারও পরামর্শ দেয়া হয়।

Aviation News