শুক্র গ্রহের এসিডের মাঝেও বসবাস সম্ভব এলিয়েনদের

এই লেখাটি 78 বার পঠিত

বর্তমানে এ সৌরজগতের গ্রহ-উপগ্রহগুলোর মাঝে শুক্র গ্রহের পরিস্থিতি প্রাণী বসবাসের জন্য সবচেয়ে কঠিন বলে মনে করেন গবেষকরা। তবে এ গ্রহের প্রচণ্ড বিরুপ পরিস্থিতিতেও প্রাণী বসবাস করতে পারে বলে উঠে এসেছে সাম্প্রতিক এক গবেষণায়।

শুক্র গ্রহে প্রাণী বসবাস কঠিন হওয়ার অন্যতম কারণ হলো এর এসিড মেঘ। আর এই এসিড মেঘের পরিবেশেও এলিয়েনরুপী প্রাণী বসবাস করতে পারে বলে জানা গেছে এক গবেষণায়।

গবেষকরা বলছেন, তারা শুক্র গ্রহের মেঘের ওপর আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি ফেলে পরীক্ষা করে দেখেছেন সেখানে সালফিউরিক এসিড ও আলো-গ্রহণকারী উপাদান রয়েছে। পৃথিবীতে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, এসব উপাদানের মাঝেও জীবাণুরা প্রাণ রক্ষা করতে পারে।

গবেষণাটির ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে অ্যাস্ট্রোবায়োলজি জার্নালে।

গবেষকদের প্রধান উইসকনসিন-মেডিসন স্পেস সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং সেন্টারের সঞ্জয় লিমায়ি বলেন, শুক্র গ্রহ পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে অনেক সময় পেয়েছে। সেখানে প্রাণী থাকলে তারাও এ পরিবর্তনে খাপ খাইয়ে নিতে সময় পেয়েছে।

এর আগের গবেষণায় জানা গেছে, প্রায় দুই বিলিয়ন বছর আগে মানুষ থাকার মতো পরিবেশ ছিল শুক্র গ্রহে। কম্পিউটার মডেলিংয়ের মাধ্যমে দেখা যায়, সে সময় মানববসতির উপযোগী ছিল শুক্র। সম্ভবত এতে সমুদ্র ছিল যাতে তরল পানি ছিল। তাপমাত্রাও ছিল সহনীয়। শুক্র গ্রহের আকার ও কাঠামো পৃথিবীর মতোই।

বর্তমান শুক্র গ্রহের যে অবস্থা তার থেকে সেই সময়ের ভেনাস পুরোই আলাদা ছিল। এখন এর উপরিতলের তাপমাত্রা ৮৬৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট। সীসা গলাতে যে তাপমাত্রা দরকার তার চেয়েও গরম এটি। এর পরিবেশ কার্বন ডাই অক্সাইড এবং নাইট্রোজেনে পূর্ণ। পৃথিবীর চেয়ে শুক্র ৯০ গুণ বেশি পাতলা।

সৌরজগতের শুরুর পর থেকেই শুক্র প্রচুর সূর্যের আলো পেত। ফলে এর সমুদ্রের পানি বাষ্পীভূত হয়ে যায়। অবশেষে গ্রহটি অনেক পাতলা হয়ে যায় যা কার্বন ডাই অক্সাইডে পূর্ণ।

সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

Aviation News