উড়োজাহাজ সংকটে আটকে আছে বিমানের রুট সম্প্রসারণ পরিকল্পনা

এই লেখাটি 280 বার পঠিত

উড়োজাহাজ সংকটে আটকে আছে বিমানের রুট সম্প্রসারণ পরিকল্পনা।
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে লিজে আনা বোয়িং ৭৭৭-২০০ উড়োজাহাজ ছিল দুটি। একটি উড়োজাহাজ এরই মধ্যে ফেরত চলে গেছে। অন্যটি যাবে চলতি মাসেই। আরো একটি উড়োজাহাজও ফেরত দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এ অবস্থায় উড়োজাহাজ সংকটে থেমে গেছে বিমানের নতুন রুট সম্প্রসারণের পরিকল্পনা।

ব্যবসা বাড়াতে চলতি বছরের শুরুতেই রুট সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয় বিমান। এ লক্ষ্যে চীনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক নগরী গুয়াংজু, শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বো ও মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে উড়োজাহাজ না থাকায় আপাতত রুট সম্প্রসারণের বিষয়টি বন্ধ রেখেছে বিমান কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, লিজের মেয়াদ শেষ হওয়ায় কয়েকটি উড়োজাহাজ ফেরত যাওয়ার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। একই সঙ্গে লিজের মাধ্যমে কয়েকটি উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে। এটি এয়ারলাইনস ব্যবসার একটি নিয়মিত ঘটনা। তবে নির্ধারিত সময়ে উড়োজাহাজগুলো বহরে যুক্ত না হওয়ায় সাময়িক সমস্যা তৈরি হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে পরিকল্পনা অনুযায়ী নতুন রুটগুলো যথাসময়ে চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। লিজ প্রক্রিয়ায় থাকা উড়োজাহাজগুলো বহরে যুক্ত হওয়ামাত্রই নতুন রুটগুলোয় ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করবে বিমান।

জানা গেছে, বহরে উড়োজাহাজ সংকট মোকাবেলায় দীর্ঘমেয়াদের লিজে আরো দুটি উড়োজাহাজ আনার চেষ্টা করছে বিমান। পাশাপাশি হজ ফ্লাইট পরিচালনা করতে এরই মধ্যে তিনটি উড়োজাহাজ সংগ্রহে লিজের দরপত্র প্রক্রিয়া চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। হজ ফ্লাইট পরিচালনার জন্য এয়ারক্রাফট, ক্রু, মেইনটেন্যান্স, ইন্স্যুরেন্স (এসিএমআই) চুক্তির ভিত্তিতে উড়োজাহাজগুলো লিজ নেয়া হবে। লিজকালীন প্রতিটি উড়োজাহাজ দিয়ে কমপক্ষে ৭০০ ব্লক আওয়ার ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান।

এর আগে লোকসানে থাকা বিমানকে মুনাফার ধারায় ফেরাতে ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত আনা হয় চারটি বোয়িং-৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজ। এগুলোর নামকরণ করা হয় যথাক্রমে ‘পালকি’, ‘অরুণ আলো’, ‘আকাশ প্রদীপ’ ও ‘রাঙা প্রভাত’। পরবর্তীতে ২০১৫ সালের নভেম্বরে আনা হয়েছে বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মডেলের নতুন আরো একটি উড়োজাহাজ; যার নামকরণ করা হয়েছে ‘মেঘদূত’। সর্বশেষ ২০১৫ সালের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে বিমানের বহরে যোগ হয়েছে বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ ‘ময়ূরপঙ্খী’। আর চলতি বছর আগস্ট ও নভেম্বরের মধ্যে যুক্ত হবে দুটি বোয়িং-৭৮৭-৮ (ড্রিমলাইনার) উড়োজাহাজ।

বর্তমানে বিমানের বহরে রয়েছে ৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ৪টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এবং ২টি ড্যাশ-৮ কিউ৪০০ উড়োজাহাজ। রাষ্ট্রীয় উড়োজাহাজ পরিবহন সংস্থাটি এখন ১৫টি আন্তর্জাতিক ও সাতটি অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

সূত্রঃ বণিক বার্তা

Aviation News