বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না প্রিয়াঙ্কার

এই লেখাটি 99 বার পঠিত

বিভাজিকার কারণে বিপাকে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। অসম পর্যটনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হলেন বলিউডের ‘জংলি বিল্লি’। অসম পর্যটন সম্প্রতি একটি ক্যালেন্ডার লঞ্চ করেছে। সেই ক্যালেন্ডারে প্রিয়াঙ্কার খোলামেলা ফ্রক পরা ছবি ঘিরে বিতর্ক শুরু হয়েছে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, অসম পর্যটনের ক্যালেন্ডারে প্রিয়াঙ্কার উন্মুক্ত বিভাজিকার ছবি ঘিরে অসম রাজ্যসভায় প্রশ্ন তুলছেন কংগ্রেস নেতারা। তাদের দাবি, ক্যালেন্ডারে প্রিয়াঙ্কাকে একেবারেই কম পোশাকে দেখা যাচ্ছে, যা মোটেই অসমের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির সাথে মানানসই নয়। অসম পর্যটনের ব্যান্ড অ্যাম্বাসাডর পদ থেকে প্রিয়াঙ্কাকে বাদ দেওয়ার দাবিও করেছেন কংগ্রেস নেতারা।

এই কংগ্রেস নেতাদের মধ্যে রয়েছেন বিধায়ক রূপজ্যোতি কুরমি ও নন্দিতা দাস। কুরমির কথায়, অসমের সংস্কৃতির সম্মান রক্ষা করা উচিত সরকারের। ফ্রক মোটেই অসমের পোশাক নয় আর ক্যালেন্ডারটি ভদ্র নয়। সরকারের বোঝা উচিত ছিল, কীভাবে রাজ্যের সংস্কৃতি সংরক্ষিত রাখতে হয়। এখানে চিরায়িত মেখলা পরা যেত।

শুধু প্রিয়াঙ্কাকে বাদ দেওয়াই নয়। বদলে অসমেরই কোনও শিল্পীকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর পদে আনার কথা বলেছেন তিনি। যদিও অসম ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট করপোরেশন এই ক্যালেন্ডারে অশোভনীয় কিছু লক্ষ্য করেনি বলেই জানা গেছে। বরং তাদের দাবি, অসম পর্যটনের ক্যালেন্ডারে প্রিয়ঙ্কার উপস্থিতি কোনও ভাবেই রাজ্যের সংস্কৃতির বদনাম করবে না।

প্রসঙ্গত, হিরে ব্যবসায়ী নীরব মোদি ব্র্যান্ডের একটি বিজ্ঞাপনে প্রিয়াঙ্কাকে দেখা যাওয়ায় তাকে নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। অর্থাৎ বোঝাই যাচ্ছে, প্রিয়াঙ্কার সময় খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। তাই কিছুতেই বিতর্ক নায়িকার পিছু ছাড়ছে না। তবে এই অবস্থা যে সাময়িক, তা ভালো মতোই জানা আছে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার।

Aviation News