‘বাঁচাও বাঁচাও’ বলছিলাম

এই লেখাটি 218 বার পঠিত

‘নূরজাহান’ ছবির মাধ্যমে ঢালিউডের শিশুশিল্পী পূজা চেরির অভিষেক হয়েছে বড় পর্দায়। শুক্রবার সারাদেশে ছবিটি মুক্তি পায়। এদিন ফেসবুক লাইভে এসে সবাই নিজের প্রথম ছবিটি (নায়িকা হিসেবে) দেখার অনুরোধ জানিয়েছেন পূজা।

ফেসবুক লাইভে পূজা বলেন, যারা ‘নূরজাহান’ দেখেছেন তাদের জন্য অনেক ভালোবাসা। যারা দেখেননি দয়া করে হলে গিয়ে দেখবেন ছবিটি। আমার প্রথম ছবি এবং সবাই খুব ভালো বলছে। আপনাদেরও ভালো লাগবে। অপেক্ষা করে থাকবেন না। একদম কিচ্ছু ভাবার নেই। এটি মৌলিক গল্পের রোমান্টিক ছবি। আপনারা উপভোগ করবেন। আপনাদের ভালোলাগার-ভালোবাসার মানুষকে নিয়ে ভালোলাগার-ভালোবাসার এই ছবিটি দেখবেন। আমার বিপরীতে যে অভিনয় করেছে আদৃত, সে খুব ভালো অভিনয় করেছে। আমি চেষ্টা করেছি ভালো দেয়ার, ভালো অভিনয় করার।

শ্যুটিংয়ের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে পূজা বলেন, একটি দৃশ্যে নৌকায় আমি আর আদৃত (ছবির নায়ক) বসে আছি। মানে ছবির চরিত্র নূর ও জাহান বসে আছে। জাহান পানিতে ঝাঁপ দেবে এবং নূর এসে বাঁচাবে। নূর সাঁতার জানে না কিন্তু জাহান খুব ভালো সাঁতার জানে। (যদিও বাস্তবে আমি একদমই সাঁতার জানি না। আদৃত খুব ভালো সাঁতার জানে!) জাহান ঝাঁপ দিল, নূর এসে বাঁচাবে। কিন্তু কীভাবে বাঁচাবে? নূর তো একদমই সাঁতার (ছবিতে) জানে না! নূরের সংলাপটা ছিল, ‘বাঁচাও! বাঁচাও!’ নূর আমার দিকে তাকিয়ে আছে। ভাবছে, আমার সংলাপ পূজা কেন বলছে? আমি বলছিলাম, ‘বাঁচাও! বাঁচাও!’ আমি ডুবে যাচ্ছিলাম। অভিদা (ছবির নির্মাতা অভিমন্যু মুখার্জী) নূরকে বললো, ‘ওকে বাঁচা। ও সাঁতার জানে না।’ পরে কিছুক্ষণ ডোবানোর পর আদৃত আমাকে বাঁচাল!

পূজা চেরি আরও বলেন, পুরো টিম উপভোগ করে কাজ করেছি। অনেক কষ্ট হয়েছে, মজাও লেগেছে। শুধু আপনাদের জন্য, আপনাদের ভালোলাগার জন্য, ভালোবাসা পাওয়ার জন্য এত কষ্ট করে এই ছবিটি তৈরি করা হয়েছে। আপনারা হলে গিয়ে যদি ছবিটি না দেখেন তাহলে কষ্টটা বৃথা যাবে।

Aviation News