প্রার্থনা আর প্রদীপ জ্বালিয়ে রাশিয়ায় নিহত বিমানযাত্রীদের স্মরণ

এই লেখাটি 52 বার পঠিত

রাশিয়ায় যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৭১ আরোহী নিহতের ঘটনায় শোক পালন করছে দেশটির সাধারণ মানুষ। মস্কোসহ বিভিন্ন স্থানে গির্জায় গির্জায় প্রার্থনা আর প্রদীপ জ্বালিয়ে নিহতদের স্মরণ করেন তারা। সোমবার রাতে মস্কোর ক্রাইস্ট দ্যা স্যাভিয়ার ক্যাথেড্রালের সামনে জড়ো হন অসংখ্য মানুষ। রাত জেগে প্রদীপ জ্বালিয়ে ও প্রার্থনা সঙ্গীতের মাধ্যমে রোববারের বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণ করেন তারা।

বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রীদের একজন ছিলেন নাতালিয়া মেশারিয়াকোভা। তার পরিবার এখন শোকে স্তব্ধ। মায়ের এমন মৃত্যু বিশ্বাসই করতে পারছেন না নাতালিয়ার মেয়ে একাতেরিনা। ছবিগুলোই এখন তার সম্বল। পরিবার চালানোর তাগিদে নাতালিয়া মস্কোয় কাজ করতেন বলে জানান তিনি।

জানা যায়, স্পিড সেন্সরে বরফ জমায় পাইলট গতির সঠিক তথ্য না পাওয়ার কারণে রাশিয়ার সারাতভ এয়ারলাইন্সের এএন-১৪৮ উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়ে থাকতে পারে ধারণা করছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।
কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে তাস বার্তা সংস্থা জানায়, ফ্লাইট রেকর্ডারে থাকা তথ্যের প্রাথমিক বিশ্লেষণ উড়োজাহাজটি উড্ডয়নের আড়াই মিনিট পর থেকে ‘অস্বাভাবিক কিছু’ ঘটতে শুরু করার ইঙ্গিত দিয়েছে।

“ওই সময় উড়োজাহাজটি চার হাজার ২৫৬ ফুট উচ্চতায় ঘণ্টায় ৪৬৫ থেকে ৪৭০ কিলোমিটার বেগে যাচ্ছিল। কিন্তু স্পিড সেন্সরে ভিন্ন গতি দেখাচ্ছিল।”

সেন্সরগুলোর হিটিং সিস্টেম বন্ধ থাকার সময় সেগুলোতে বরফ জমে যাওয়ার কারণে ওই গড়বড় হয়ে থাকতে পারে এবং পাইলট বিমানের কন্ট্রোল প্যানেলের যন্ত্রপাতিতে গতির ভুল ডাটা পেয়ে থাকতে পারে বলে উল্লেখ করেছে তদন্ত কমিটি।

যন্ত্রপাতিতে গতির ভুল তথ্য আসার ওই মুহূর্তেই পাইলটরা অটোপাইলট সিস্টেম বন্ধ করে দিয়েছে এবং বিমানটির গতি কমতে কমতে এক পর্যায়ে সেটি বিধ্বস্ত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে দুর্ঘটনার জন্য শোক প্রকাশ করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে পাঠানো এক বার্তায় তিনি নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাদের পরিবারদের প্রতি সমবেদনা জানান।

Aviation News