কার্গো নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে যুক্তরাজ্য

এই লেখাটি 380 বার পঠিত

বাংলাদেশের ওপর থেকে কার্গো নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিষয়ে গ্রিন সিগন্যাল দিয়েছে যুক্তরাজ্য। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন দুইদিনের সফরে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় আসছেন। তার সফরের আগেই এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট উইং-এর কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে এ তথ্য জানান।

কার্গো পরিবহন রাষ্ট্রায়াত্ত্ব বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অন্যতম একটি আয়ের উৎস। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে কার্গো খাতে বিমানের আয় হয়েছে ২শ’ ৪৪ কোটি টাকা। নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলে এ আয় আরও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

সদ্যবিদায়ী ঢাকাস্থ ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশনার ডেভিড অ্যাশলে বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আসন্ন বাংলাদেশ সফর নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে গ্রিন সিগন্যাল দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা। এসময় ঢাকায় নবনিযুক্ত ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশনার হুসেইন বোর উপস্থিত ছিলেন।

অ্যাশলে জানান, ২০১৭ সালের শেষের দিকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি শর্ত দিয়েছিল ইউকে ডিপার্টমেন্ট অব ট্রান্সপোর্ট (ডিএফটি)। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বিষয়ে দীর্ঘমেয়াদে দু’জন পরামর্শক নিয়োগ, এভিয়েশন সিকিউরিটিতে ইউকে মডেল অনুসরণ করা ও ইউকের একক নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ। এসব বিষয়ে ব্যাপক উন্নতি করেছে বাংলাদেশ।

নিরাপত্তায় ঘাটতির কথা বলে ২০১৬ সালের মার্চ মাসে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাজ্য তার দেশে সরাসরি পণ্য পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

এ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে যুক্তরাজ্যের পরামর্শে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়া হয় ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠান রেড লাইনকে। প্রতিষ্ঠানটি সিভিল এভিয়েশনের নিরাপত্তা কর্মীদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি যাত্রীদের ব্যাগ তল্লাশিসহ বিভিন্ন আধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজনের পরামর্শ দেয়। যুক্তরাজ্যের পরামর্শে রফতানি কার্গো জোনে বসানো হয়েছে এক্সপ্লোসিভ ডিটেকশন সিস্টেম (ইডিএস)। এছাড়া এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে (এএপিবিএন) ডগ স্কোয়াডে যুক্ত হয় বেশ কয়েকটি প্রশিক্ষিত কুকুর।

কুকুরগুলো মাদক, অস্ত্র, বিস্ফোরকসহ ক্ষতিকর বস্তু শনাক্তে পারদর্শী। যুক্তরাজ্যের পরামর্শ অনুযায়ী বিমানবন্দরে উড়োজাহাজের হোল্ডে রাখার মতো ভারী ব্যাগ তল্লাশির জন্য ডুয়েল ভিউ এক্স-রে স্ক্যানিং মেশিন, হ্যান্ডব্যাগ তল্লাশির জন্য ডুয়েল ভিউ স্ক্যানিং মেশিন, লিকুইড এক্সপ্লোসিভ ডিটেকশন সিস্টেম (এলইডিএস), আন্ডার ভেহিক্যাল স্ক্যানিং সিস্টেম (ইউ ভিএসএস), ফ্যাপ ব্যারিয়ার গেট উইথ কার্ড রিডার, ব্যারিয়ার গেট উইথ আরএফআইডি কার্ড রিডার, এক্সপোসিভ ট্রেস ডিটেকশন (ইটিডি) যন্ত্রপাতি বসানোর কাজ চলমান।

Aviation News