মালয়েশিয়া বিমানকর্মীর পোশাকে লজ্জা পেয়েছেন পশ্চিমা নারী

এই লেখাটি 219 বার পঠিত

worldscrews.blogspot.com

মালয়েশিয়ার নারী বিমান সেবিকাদের নগ্ন পোশাক নিয়ে নিন্দা করেছেন এক পশ্চিমা নারী। নিউজিল্যান্ডের নাগরিক ও চিকিৎসক জুন রবার্টসন সম্প্রতি এয়ার এশিয়ার ফ্লাইটে ভ্রমণ করছিলেন। ‌কিন্তু সেখানে বিমান সেবিকাদের পোশাক দেখে হতবাক হয়েছে তিনি। সেবিকাদের পরনে ছোট স্কার্ট আর খোলা বুক দেখে তিনি প্রচণ্ড বিরক্ত হন। এ নিয়ে অভিযোগ জানিয়ে মালয়েশিয়ার সিনেটর হানাফি মামেত’র কাছে তিনি চিঠি লিখে নিন্দা জানিয়েছেন। খবর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টার, গ্লোবাল হেডলাইন।

জুন রবার্টসন অভিযোগ করেন, এয়ার এশিয়ার বিমান সেবিকাদের পোশাক দেখে আমি প্রচণ্ড লজ্জা পেয়েছি। ইউরোপ, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া কিংবা যুক্তরাষ্ট্রের এয়ারলাইন্সের বিমান সেবিকারাও এত ছোট স্কার্ট পরেন না।

চিঠিতে বিমান সেবিকাদের ব্যবহার নিয়েও তিনি প্রশ্ন তোলেন। জানান, এয়ার এশিয়ার বিমানে করে অকল্যান্ড থেকে কুয়ালালামপুর যাচ্ছিলেন তিনি। সেই সময় এক বিমান সেবিকাকে দেখে বাধ্য হয়ে তিনি বলেন, বুক ঢাকতে জ্যাকেটের বোতাম আটকাতে। কিন্তু তার কথায় কান দেয়নি ওই বিমান সেবিকা।
চিঠিটা নিজের ফেসবুকেও প্রকাশ করেছেন রবার্টসন। সেখানে তিনি আরও লিখেছেন, ‌বিমানবন্দরে থাকার সময়েই এক কর্মীকে দেখে প্রচণ্ড লজ্জা পেয়েছি। তার স্কার্ট এতটাই ছোট ছিল যে অন্তর্বাস পর্যন্ত দেখা যাচ্ছিল, কি ভয়াবহ! মালয়েশিয়ায় তো শুনেছি নারীদের খুব সম্মান করা হয়। তাহলে বিমান সেবিকারা এমন পোশাক পরে কিভাবে?‌
এদিকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টারে আরও বলা হয়েছে, চিঠি’র বিষয়ে মালয়েশিয়ার সিনেটর সচেতন হলেও এয়ার এশিয়া কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত কোনো প্রকার প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। তবে এই বিমান সংস্থার নারী কর্মীদের পোশাক নিয়ে এর আগেও প্রশ্ন তুলেছিলেন দেশটির একাধিক আইনপ্রণেতা।

Aviation News