ভিভিআইপিদের আস্থার প্রতীক এখন বিমান

এই লেখাটি 638 বার পঠিত

bangladesh-bg-20171204041730পোপ ফ্রান্সিস বাংলাদেশে এসেছেন বিমানের বিশেষ ভিভিআইপি ফ্লাইট ‘মেঘদূ’তে। এয়ারলাইন্সের ভিড়ে পোপ বিমানেরই একটি বিশেষ চাটার্ড ফ্লাইট ও সুপেরিয়র বোয়িং-৭৭৭ এ চড়ে রোমের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন। এ সময় পোপের সঙ্গে ছিলেন বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএম মোসাদ্দিক আহমেদ ও জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক শাকিল মেরাজসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

মোসাদ্দিক আহমেদ বলেন, উন্নত গ্রাহক সেবা ও সেফটি স্টান্ডার্ডের দিক থেকে বিমানের অবস্থান এখন শীর্ষে। যৌক্তিক কারণে বিমান এখন পোপের আস্থার প্রতীক হয়ে গেছে।

বিমান সূত্রে জানা গেছে, ভিভিআইপি ফ্লাইটের সব সুবিধা নিশ্চিত করেই পরিচালনা করা হয়েছে পোপের ফ্লাইট। দেয়া হচ্ছে বিশেষ গ্রাউন্ড হ্যান্ডিলং সেবা। বিমানের গ্রাউন্ড হ্যান্ডিলং সেবাসহ সংশ্লিষ্ট সব বিভাগের কর্মীরা পোপের যত্নের বিষয়ে তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনন্স এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এএম মোসাাদ্দিক আহমেদ।

তিনি বলেন, সফররত বিশ্বের ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। বিমানের ফ্লাইটে ভিভিআইপি মর্যাদা ও হ্যান্ডলিং সেবা দিয়েছি তাকে। উন্নত সেবার কারণে বিমান এখন ভিভিআইপিদের কাছে আস্থার প্রতীক।

এ বিষয়ে বিমান শ্রমিক লীগ- সিবিএ সভাপতি মশিকুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ বিমান সব সময়ই উন্নত গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং সেবা প্রদান করে থাকে। পোপের ভ্রমণকে লক্ষ্য করে বিমান আরও নিখুঁত গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং সেবা নিশ্চিত করছে। শুধু গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং সেবা নয়, বাংলাদেশ বিমানের নিজস্ব উড়োজাহাজে পোপকে বহন করে ইয়াঙ্গুন থেকে ঢাকা নিয়ে আসা হয়েছে এবং বাংলাদেশ বিমানেরই একটি বিশেষ উড়োজাহাজ বিজি-১২১৩ ফ্লাইটে এই ধর্মগুরু সরাসরি রোমে গেছেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার দুপুরে মিয়ানমার থেকে বিজি-১১২ ফ্লাইটে ঢাকায় পৌঁছান পোপ ফ্রান্সিস। এ সময় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। রোমান ক্যাথলিক গির্জার যাজক হিসেবেও পোপ ফ্রান্সিস এ সফরে আসেন।

Aviation News