পাসপোর্ট অধিদপ্তরে দুর্নীতি দেশ ছেড়েছেন পরিচালক নজরুল ইসলাম

এই লেখাটি 193 বার পঠিত

gov-inner20171019100109পাসপোর্ট অধিদপ্তরের পরিচালক নজরুল ইসলাম দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। দীর্ঘ দুই বছর যাবত্ তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মচারী নিয়োগে দুর্নীতি ও অনিয়মসহ বিভিন্ন গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। দুই বছর আগে তিনি সাত দিনের ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যান। এরপর আর দেশে ফেরেননি। ৫৯ দিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় সরকারি বিধি অনুযায়ী তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। বিষয়টি এখনো ধামাচাপা পড়ে আছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নজরুল ইসলাম পাসপোর্ট অধিদপ্তরের প্রশাসন শাখার পরিচালক থাকাকালে ২০১৫ সালে এই অধিদপ্তরের ১ হাজার ১শ’ কর্মচারী নিয়োগ করা হয়। নজরুল ইসলাম এই নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব ছিলেন। নিয়ম অনুযায়ী নিয়োগপ্রাপ্তদের লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র তাদের ব্যক্তিগত ফাইলে সংরক্ষণ করা হয়। কিন্তু পরীক্ষায় ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়ম হওয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মচারীদের সব উত্তরপত্র গায়েব করে ফেলা হয়। পাসপোর্ট অধিদপ্তরের একটি সংঘবদ্ধ চক্র এই নিয়োগের মাধ্যমে কয়েক কোটি টাকার বাণিজ্য করে।

এ ব্যাপারে দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্ত শুরু করে। তদন্তের এক পর্যায়ে নিয়োগ কমিটির সভাপতি এবং পাসপোর্ট অধিদপ্তরের তত্কালীন অতিরিক্ত মহাপরিচালক রফিকুল ইসলামকে দুদক গ্রেফতার করে। এই গ্রেফতারের পরই নজরুল ইসলাম দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান। তাকে পালাতে অধিদপ্তরের এক পদস্থ কর্মকর্তা সহায়তা করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে দেশ ত্যাগের সময় নজরুল ইসলাম যে পাসপোর্ট ব্যবহার করেন তার নম্বর বিএফ ০৭৫৬৮০৮। তবে এই পাসপোর্টে যুক্তরাষ্ট্রের কোন ভিসা ছিল না। সূত্রটি জানায়, নজরুল ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিক। বাংলাদেশি পাসপোর্টে দুবাই গিয়ে তিনি সেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পাসপোর্টের মাধ্যমে সেদেশে পাড়ি জমান। এদিকে কর্মচারী নিয়োগ কেলেঙ্কারি ঘটনার তদন্ত ধীর গতিতে চলছে। কবে শেষ হবে তা কেউ বলতে পারেননি।

Aviation News