বিমানের ১৫ পাইলট ও কো-পাইলট নজরদারিতে

Biman-logoআইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিমানের ১৫ পাইলট ও কো-পাইলটকে ভয়ঙ্কর ক্যাপ্টেন হিসেবে উল্লেখ করে তাদের নজরদারির আওতায় নিয়েছে। সব এয়ারলাইন্স ও হেলিকপ্টার কোম্পানিকে তাদের পাইলট, কো-পাইলট, কেবিন ক্রু ও প্রকৌশল বিভাগের সদস্যদের ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও ছাত্র জীবনের রেকর্ড সংগ্রহ করে রাখতে বলা হয়েছে। ককপিট, কেবিন ক্রু ও প্রকৌশল বিভাগের সদস্যদের (যারা ফ্লাইট পরিচালনা করেন) অতীতে কোনো ঝুঁকিপূর্ণ রেকর্ড থাকলে তা দ্রুত সিভিল এভিয়েশনকে অবহিত করতে বলা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সব বিমানবন্দরের শীর্ষ কর্মকর্তা, দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্স ও হেলিকপ্টার কোম্পানির প্রতিনিধিদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এসব নির্দেশ দেয়। বৈঠকে সব এয়ারলাইন্সকে বিমানবন্দর ব্যবহার, যাত্রী ও মালামাল পরিবহনে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে, নিরাপত্তার স্বার্থে দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্সসহ দেশের সব বিমানবন্দরে এক্সট্রা অ্যালার্ট (অতিরিক্ত সতর্কতা) জারি করেছে বেবিচক।

একই সঙ্গে দুই থেকে বাড়িয়ে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। বিমান নিয়ে নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে এক কো-পাইলটসহ চার জঙ্গি গ্রেফতারের পর বেবিচক এ পদক্ষেপ নিচ্ছে।

এছাড়া এখন থেকে দেশি-বিদেশি সব এয়ারলাইন্সের ক্রু ও যাত্রীদের চার স্তরের নিরাপত্তার ভেতর দিয়ে যাতায়াত করতে হবে। এ নিরাপত্তা বেষ্টনির একটি স্তরে পাহারায় থাকবে সদ্য যুক্তরাজ্য থেকে আনা প্রশিক্ষিত ডগ স্কোয়াড। বর্তমানে বিমানবন্দরে দুই স্তরের নিরাপত্তা আছে। নতুনভাবে নেয়া চার স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনি গড়ে তোলা হচ্ছে। এর মধ্যে গেট দিয়ে বিমানবন্দরে প্রবেশ হচ্ছে প্রথম ধাপ, দ্বিতীয় ইমিগ্রেশন, তৃতীয় ফাইনাল চেকিং এবং চতুর্থ এয়ারক্রাফটের প্রবেশ মুখ। এ চারটি স্তর অতিক্রম করতে হবে সংশ্লিষ্টদের।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সদস্য (অপারেশন অ্যান্ড প্ল্যানিং) এয়ার কমোডর মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ফ্লাইট পরিচালনার বিষয়ে অতিরিক্ত সতর্কতা (এক্সট্রা অ্যালার্ট) অবলম্বনের জন্য দেশের সব বিমানবন্দরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বেবিচকের ফ্লাইট সেফটি বিভাগ থেকে দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্স ও হেলিকপ্টার কোম্পানিগুলোর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে করে এ নির্দেশ দেয়া হয়। তিনি বলেন, এখন থেকে সব ফ্লাইটের যাত্রী ও ক্রুদের চার স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

যাত্রীদের পাশাপাশি দেশি-বিদেশি সব এয়ারলাইন্স ক্রুদেরও একইভাবে নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্য দিয়ে বিমানবন্দরে প্রবেশ করতে হবে। এসব নিরাপত্তা বেষ্টনির একটি স্তরে ডগ স্কোয়াড থাকবে। আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নসহ বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় নিয়োজিত অ্যাভসেক সেলকে আরও কঠোর মনিটরিংয়ের আওতায় আনা হয়েছে। যাত্রী ও ক্রুদের প্রবেশপথেগুলোতে সিসি টিভি বসানো হয়েছে। সার্বক্ষণিকভাবে একটি মনিটরিং সেল থেকে সিসি টিভিগুলো পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া কার্গো এরিয়ায় বিজিবির ডগ স্কোয়াড ও এক্সপ্লোসিভ ডিটেনশন সিস্টেম (ইডিএস) মেশিন বসানো হয়েছে। এ ইডিএস মেশিন দিয়ে যাত্রী ও কার্গো পণ্য শতভাগ এক্সরে স্ক্যানিং বা শতভাগ এক্সপ্লোসিভ ট্রেস ডিটেনশন (ইটিডি) মেশিনের মাধ্যমে তল্লাশি করা হবে।

সূত্রঃ নিউজজি৩৪ডটকম

Aviation News

সম্পাদক: তারেক এম হাসান
যোগাযোগ: জোবায়ের অভি, ঢাকা, ফোন +৮৮ ০১৬৮৪৯৬৭৫০৪
ই-মেইল: jobayerovi@gmail.com
যুক্তরাস্ট্র অফিস
ইউএসএ সম্পাদক: মো. শহীদুল ইসলাম
৭১-২০, ৩৫ অ্যাভিনিউ, জ্যাকসন হাইটস, নিউইয়র্ক ১১৩৭২
মোবাইল: +১ (২১২) ২০৩-৯০১৩, +১ (২১২) ৪৭০-২৩০৩
ইমেইল: dutimoy@gmail.com
এডিটর ইন চিফ : মুজিবুর আর মাসুদ ইমেইল: muzibny@gmail.com
©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত এভিয়েশন নিউজবিডি.কম ২০১৪-২০১৬