ভারতে স্বামীর মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

এই লেখাটি 202 বার পঠিত

rapeডাকাতি করতে এসে স্বামীর মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করল দুই দুষ্কৃতী। ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে ধরা পড়েছে বাপি সর্দার নামে এক অভিযুক্ত। অপর এক অভিযুক্ত পলাতক। বুধবার দিবাগত রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বিষ্ণুপুর থানার রসপুঞ্জ এলাকার উত্তর কাজিপুর এলাকায়। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, ডাকাতি করতে এসেই লালসার শিকার বানানো হয়েছে ওই গৃহবধূকে।

পুলিশ সূত্র জানায়, বুধবার গভীর রাতে উত্তর কাজিপুরের এক পরিবারের উপর চড়াও হয় দুই দুষ্কৃতী। প্রথমে বাড়ির দরজায় ধাক্কা দেয় তারা। সন্দেহের বশে তা খুলে দেন গৃহকর্তা। এরপরই বাড়ির ভিতরে ঢুকে আসে দু’জন। গৃহকর্তার মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে তাঁকে বেধে ফেলা হয়। মুখে গুঁজে দেওয়া হয় কাপড়। এই দৃশ্য দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন গৃহবধূ ও তার দুই ছেলে। এরপর দুই ছেলের মাথায় বন্দুক ধরে ভয় দেখানো হয় সেই গৃহবধূকে। এরপর তাকে গণধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। প্রতিবাদ করে ওঠে বছর তার ১০ ও ১২ বছরের দুই ছেলে। কিন্তু দুষ্কৃতীরা তাদের পাশের পুকুরে ছুড়ে ফেলে দেয়।

কোনওভাবে নিজেদের বাঁচিয়ে পাশের বাড়িতে খবর দেয় ছেলেরাই। প্রতিবেশীরা জড়ো হয়ে দম্পতিকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। বাইরে অনেকের গলা শুনে সঙ্গী বাপিকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় নিতাই নামের দুষ্কৃতী। বাপিও পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু ধরা পড়ে যায়। ব্যাপক মারধর করা হয় তাকে। পরে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশের হাতে তাকে তুলে দেওয়া হয়।

Aviation News