ঈশ্বরদীর বাণিজ্যিক গুরুত্ব বাড়লেও তিন বছর ধরে বন্ধ বিমানবন্দর

Ishwardi-Airport-1নৌ, স্থল, আকাশ—তিন পথের যোগাযোগব্যবস্থা নিয়ে বেশ গর্ব ছিল ঈশ্বরদীবাসীর। উপজেলা শহরের কোল ঘেঁষে পদ্মা নদী। মাঝখানে রেলওয়ে জংশন। মহাসড়কও আছে রাজধানীর সঙ্গে। আছে বিমানবন্দর। তবে তিন বছর ধরে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ। দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদনকেন্দ্র হচ্ছে শহরের পাশেই রূপগঞ্জে। ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্পকারখানার সংখ্যা বৃদ্ধিতে ঈশ্বরদীর গুরুত্ব বাড়ছেই।
ঈশ্বরদী বিমানবন্দর থেকে ঢাকায় শেষ উড়োজাহাজ উড়েছিল ২০১৪ সালের ২৯ মে। ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের একটি উড়োজাহাজ সপ্তাহে তিন দিন শনি, সোম ও বুধবার ঢাকা-ঈশ্বরদী পথে চলত। বিমানবন্দরটি আবার চালু করা এলাকাবাসীর অন্যতম দাবি। তবে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, খুব শিগগির বিমানবন্দরটি চালুর সম্ভাবনা নেই।
ঈশ্বরদী থেকে ঢাকার বিমানযাত্রীর সংখ্যা ভালোই ছিল বলে জানালেন স্থানীয় টিকেটিং এজেন্সি সরকার এয়ার এক্সপ্রেস অ্যান্ড ট্রাভেলসের স্বত্বাধিকারী শাহান শাহ আলমগীর। উড়োজাহাজ ভাড়া ছিল জনপ্রতি ৩ থেকে ৬ হাজার টাকা পর্যন্ত চারটি স্তরে। গড়ে ৯০ শতাংশ যাত্রী পাওয়া যেত যাতায়াতে।
রূপগঞ্জে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে প্রায় ৪০০ বিদেশি বিশেষজ্ঞ কাজ করছেন। তাঁরা নিয়মিত ঢাকায় যাতায়াত করেন। ঈশ্বরদী বিমানবন্দর বন্ধ থাকায় তাঁরা রাজশাহী বা যশোর দিয়ে যাতায়াত করছেন। বিদেশিদের অনেকে এবং ঈশ্বরদী ইপিজেড ও পাবনার শিল্পপতিদের কেউ কেউ হেলিকপ্টারে করে যাতায়াত করছেন।
উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ থাকার কারণ ছোট আকারের উড়োজাহাজ না থাকা। বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক আবদুর রশীদ আকন্দ বলেন, বিমানবন্দরে ৩৮ আসনের ‘ড্যাস-৮-৩০০’ মডেলের উড়োজাহাজ যাতায়াত করত। এ ধরনের একটিই উড়োজাহাজ ছিল ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের। ওড়ার উপযোগী না হওয়ায় বিমানটি তাদের কর্তৃপক্ষ বসিয়ে (গ্রাউন্ডেড) রেখেছে। ফলে ঈশ্বরদী থেকে কোনো বিমান যাতায়াত করছে না। সরকারি সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসসহ অন্যান্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উড়োজাহাজগুলো আকারে বড়, ‘ড্যাস-৮-৪০০’ মডেলের। এগুলো ৭৪ থেকে ৭৬ আসনের। আকারে বড় এই বিমানগুলো ওঠানামার জন্য ঈশ্বরদী বিমানবন্দরের রানওয়ের দৈর্ঘ্য-প্রস্থ খানিকটা বাড়াতে হবে। এখন দৈর্ঘ্য আছে ৪ হাজার ৭০০ ফুট। এটি ৬ হাজার ফুট করতে হবে। আর প্রস্থ আছে ৭৫ ফুট, করতে হবে ১০০ ফুট। রানওয়ে বাড়ানোর মতো প্রয়োজনীয় জায়গাও আছে। দুই মাসের মধ্যেই রানওয়ে সম্প্রসারণ করা যায়। এ জন্য প্রয়োজন শুধু সরকারি সিদ্ধান্ত।
বড় আকারের উড়োজাহাজে যাত্রী পাওয়া প্রসঙ্গে বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক বললেন, ঈশ্বরদীর বাণিজ্যিক গুরুত্ব বাড়ছে। তারপরও বড় উড়োজাহাজে যাত্রীর সংকট হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ফ্লাইটগুলো রাজশাহীর সঙ্গে বা যশোরের সঙ্গে জুড়ে দিলে যাত্রীর সংকট হবে না।
বিমানবন্দর সূত্র জানায়, ঈশ্বরদী শহরে ৪৩৬ দশমিক ৬৫ একর জায়গা নিয়ে স্থাপিত বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ চলাচল শুরু হয়েছিল ১৯৬৫ সালে। এখন জায়গা আছে ৭০ একর। শুরুতে ঢাকার সঙ্গে নিয়মিত দুটি ফ্লাইট ছিল। মুক্তিযুদ্ধের সময় বিমানবন্দরটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ১৯৭২ সালে সংস্কার করে এটি আবার চালু করা হয়। ১৯৮৭ সালে লোকসানের কারণে উজোজাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে বেশ কয়েক দফা চালু ও বন্ধ হয়েছে। সর্বশেষ বন্ধ হয় ২০১৪ সালে।
ঈশ্বরদীর বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলে দেখা গেল, কেবল যোগাযোগব্যবস্থা হিসেবেই নয়, বিমানবন্দর তাঁদের কাছে এলাকার একটি গর্বের বিষয়ও। সবাই চান দ্রুত এটি চালু করা হোক। শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসলাম, শহরের অন্যতম বড় ব্যবসায়ী মেসার্স মণ্ডল অ্যান্ড ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী রুনু মণ্ডল, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আবুল কালাম আজাদ, ঈশ্বরদী সরকারি কালেজ ছাত্রসংসদের সাবেক সহসভাপতি খন্দকার শহিদুল আলমসহ অনেকেই বললেন, এখন এলাকার গুরুত্ব বাড়ছে, অথচ বিমানবন্দরটি বন্ধ করে রাখা হয়েছে। ইপিজেডে ১৬টি কারখানা চালু হয়েছে, আরও ১৩টির কাজ চলছে। বিদেশি ক্রেতারা দ্রুত যাতায়াত করতে চান।
পাবনায় স্কয়ার গ্রুপ এবং কুষ্টিয়ায় বিআরবি, কিয়ামসহ বড় বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এগুলোর কর্মকর্তা এবং স্থানীয় বড় ব্যবসায়ীদের দ্রুত যাতায়াতের প্রয়োজন হয়। তা ছাড়া রূপগঞ্জ পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য ভবিষ্যতে বিমানবন্দরটির প্রয়োজনীয়তা আরও বাড়বে।
জানতে চাইলে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘উপযুক্ত উড়োজাহাজ পাওয়া যাচ্ছে না বলে ঈশ্বরদীতে বিমান চলাচল বন্ধ আছে। রানওয়ে সম্প্রসারণ করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। সিভিল অ্যাভিয়েশন বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে। তবে খুব শিগগির রানওয়ে সম্প্রসারণ করে বিমানবন্দর চালু হওয়ার সম্ভাবনা নেই।’

Aviation News

সম্পাদক: তারেক এম হাসান
যোগাযোগ: জোবায়ের অভি, ঢাকা, ফোন +৮৮ ০১৬৮৪৯৬৭৫০৪
ই-মেইল: jobayerovi@gmail.com
যুক্তরাস্ট্র অফিস
ইউএসএ সম্পাদক: মো. শহীদুল ইসলাম
৭১-২০, ৩৫ অ্যাভিনিউ, জ্যাকসন হাইটস, নিউইয়র্ক ১১৩৭২
মোবাইল: +১ (২১২) ২০৩-৯০১৩, +১ (২১২) ৪৭০-২৩০৩
ইমেইল: dutimoy@gmail.com
এডিটর ইন চিফ : মুজিবুর আর মাসুদ ইমেইল: muzibny@gmail.com
©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত এভিয়েশন নিউজবিডি.কম ২০১৪-২০১৬