রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র : ‘আগামী মাসে অর্থনৈতিক চুক্তি’

এই লেখাটি 224 বার পঠিত
nasrul20170121173637

nasrul20170121173637রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের অর্থনৈতিক চুক্তি আগামী মাসে করা হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করলে পরিবেশের কোনো ক্ষতি হবে না, বারবার এমন কথা উল্লেখ করে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আন্তর্জাতিক চাপের কোনো বিষয় এখানে আসবে না। দেশের প্রচলিত পরিবেশ আইন মেনে চললে পরিবেশের কোনো ক্ষতি হবে না।’

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে মিট দ্য রিপোর্টার্স অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান প্রতিমন্ত্রী।

রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে ডার্টি কোর থেকে আধুনিক ক্লিন কোর ব্যবহার করা হবে জানিয়ে নসরুল হামিদ বলেন, ‘যে সকল দেশ আজকে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুতের বিরোধিতা করছে, তারা একসময় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে আজকের অবস্থানে এসেছে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘নেপাল থেকে আগামীতে আরো ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ নেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে পারি কি না, এ বিষয়ে গত মাসে নেপালের বিদ্যুৎমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে নেপালে গিয়ে বিদ্যুৎ আনার চুক্তি করতে যাচ্ছি আমরা।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার অর্থ বিনিয়োগ করবে, নেপাল থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। একই প্রস্তাব ভুটানকেও দেওয়া হয়েছে। ত্রিদেশীয় চুক্তির মাধ্যমে ভারতের ভূমি ব্যবহার করে নেপাল ও ভুটান থেকে বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আনা হবে। ইতিমধ্যে ভারত এ বিষয়ে সম্মতিও প্রকাশ করেছে।’

নেপাল থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে বাংলাদেশে আনতে ৫ থেকে ৭ বছর সময় লাগবে বলেও জানান তিনি।

জ্বালানি তেলের দাম কমানোর ঘোষণা আসার পরেও কেন দাম কমানো হলো না, এমন এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্ববাজারে তেলের দাম হঠাৎ বৃদ্ধির কারণে কমানোর সিদ্ধান্ত থেকে আমরা সরে আসতে বাধ্য হয়েছি। তবে পরিস্থিতি স্থিতিশীল হলে তেলের দাম অবশ্যই কমানো হবে।’

তিনি জানান, ভবিষ্যতে সাধারণ গ্রাহকরা আবেদন করলেই বিদ্যুতের সংযোগ পেয়ে যাবেন। বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য জমির পরচা লাগবে না। এ ছাড়া শিল্প-কারখানায় বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদনের পর যত দ্রুত সম্ভব সংযোগ দেওয়া হবে। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে কাজ চলছে।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মোরসালিন নোমানি। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা।

Aviation News