এবার ২৫ হাজার জন বেশী হজে যেতে পারবেন

এই লেখাটি 319 বার পঠিত

hajjসৌদি সরকার পূর্ণ হজ কোটা দেয়ায় এবার বাংলাদেশ থেকে ২৫ হাজার জন বেশী হজে যেতে পারবেন।
রোববার সরকারি ব্যবস্থাপনায় গমনেচ্ছু হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়।

মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। বেসরকারি হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধনও শিগগিরই শুরু হবে।

ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘সৌদি কর্তৃপক্ষ ইলেকট্রনিক হজ ব্যবস্থাপনা চালু করেছে। এরসঙ্গে সমন্বয় এবং হজ ব্যবস্থাপনাকে স্বচ্ছ, জবাবদিহি এবং গতিশীল করতে আমরা গত বছর প্রথমবারের মতো প্রাক-নিবন্ধন পদ্ধতি চালু করেছিলাম।’
তিনি জানান, গত বছর এক লাখ ৪০ হাজার ৯৯৪ জন প্রাক-নিবন্ধন করেছিলেন। এরমধ্যে এক লাখ এক হাজার ৮২৯ জন হজে গিয়েছিলেন।

মতিউর রহমান বলেন, ‘অতিরিক্ত হজযাত্রীরা ২০১৭ সালের জন্য নিবন্ধিত হয়েছিলেন। এ বছর তারা অগ্রাধিকার পাবেন। গত বছরের তালিকার পর থেকে এ বছর প্রাক-নিবন্ধন শুরু হবে।’
তিনি বলেন, ‘এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন শুরু হবে ৫ হাজার ৪০২ নম্বর সিরিয়াল থেকে। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন শুরু হবে এক লাখ ৪০ হাজার ৯৯৫ নম্বর সিরিয়াল থেকে।’
প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম কতদিন চলবে- এমন প্রশ্নের জবাবে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘এটা চলতে থাকবে। শেষ হলে জানিয়ে দেয়া হবে।’

ইতিমধ্যে সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রাক-নিবন্ধন কাজ শুরু করার জন্য ইতোমধ্যে আমরা হজ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৯৬৪টি বৈধ হজ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ করেছি। অনুমোদিত ২৫টি ব্যাংকের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।’

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে চাইলে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে প্রাক-নিবন্ধন করতে হবে। জেলা প্রশাসক অফিস, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যালয় ও ঢাকায় হজ পরিচালকের অফিস থেকে প্রাক-নিবন্ধন করা যাবে।

প্রাক-নিবন্ধন করতে জাতীয় পরিচয়পত্র, (১৮ বছরের কম হলে জন্ম নিবন্ধন সনদ), প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য প্রবাস-সংক্রান্ত কাগজপত্র, মোবাইল ফোন নম্বর, প্রয়োজন হবে।
চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে কতজন হজে যেতে পারবেন- এমন প্রশ্নের জবাবে ধর্ম সচিব মো. আবদুল জলিল বলেন, ‘সৌদি সরকার একটা সিদ্ধান্তে মোট মুসলিম জনসংখ্যার ভিত্তিতে কোটার ২০ শতাংশ বন্ধ ছিল। এটা এবার ওপেন হয়ে যাবে। সে অনুযায়ী এবার আমরা এক লাখ ২৫ হাজারের ওপরে হজে যেতে পারব।’

হারাম শরীফের সংস্কারের জন্য গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন দেশের হজযাত্রী কোটা ২০ শতাংশ কমিয়েছিল সৌদি সরকার। কোটার ২০ শতাংশ কম থাকায় বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজে যেতে পারতেন।

জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ শুরু হবে।

Aviation News