আট মিনিটের ফ্লাইট!

এই লেখাটি 198 বার পঠিত

8a8f86430b2d5e1b61d43174dcc2ea26-6গত মার্চ মাসে বিশ্বের দীর্ঘতম ফ্লাইটটি চালু করেছিল বিমান সংস্থা এমিরেটস। দুবাই থেকে নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড পর্যন্ত এ ফ্লাইট বিরতিহীনভাবে ৮ হাজার ৮১৯ মাইল পাড়ি দিতে সময় নেয় ১৭ ঘণ্টা ১৫ মিনিটের মতো। এবার আন্তর্জাতিক পথে বিশ্বের সবচেয়ে কম দূরত্বের ফ্লাইটটি চালু করতে যাচ্ছে অস্ট্রিয়ার একটি বিমান সংস্থা।
পিপল’স ভিয়েনালাইন নামে অস্ট্রিয়ার ওই বিমান সংস্থাটি সুইজারল্যান্ডের সেন্ট গ্যালেন থেকে লেক কনস্টেন্স পাড়ি দিয়ে জার্মানির ফ্রিদ্রিসাফেন পর্যন্ত যাত্রী পরিবহন সার্ভিস চালুর উদ্যোগ নিয়েছে। আগামী ৩১ অক্টোবর থেকে এ সার্ভিস চালু করা যাবে বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ। আকাশপথে এই দুই এলাকার দূরত্ব ১২ দশমিক ৫ মাইল, যা পাড়ি দিতে সময় লাগবে মাত্র আট মিনিট।
ফ্লাইটটি আসলে বিমান সংস্থাটির একটি দীর্ঘ পথের প্রথম অংশ। সেন্ট গ্যালেন থেকে জার্মানির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় কলোনে শহর পর্যন্ত এই পথ, আকাশপথে যা একটানা পাড়ি দিতে সময় লাগে সাড়ে পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা। এর মধ্যে ফ্রিদ্রিসাফেনে হবে একটি যাত্রাবিরতি। আর এই যাত্রাবিরতির কারণেই আন্তর্জাতিক পথে সবচেয়ে কম দূরত্বের খাতায় নাম লেখাতে চলেছে সেন্ট গ্যালেন-ফ্রিদ্রিসাফেন ফ্লাইটটি। তবে দূরত্ব কম হলেও ভাড়া মোটেই কম নয়। একমুখী যাত্রায় একজন যাত্রীকে এর জন্য গুনতে হবে প্রায় ৪৫ ডলার।
এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পথে সবচেয়ে কম দূরত্বের ফ্লাইট হিসেবে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা থেকে স্লোভাকিয়ার রাজধানী ব্রাতিস্লাভার রুটটি পরিচিত। আকাশপথে এই দুই শহরের একটি থেকে অপরটিতে যেতে সময় লাগে ১০ মিনিট।
তবে আন্তর্জাতিক পথে কম দূরত্বের হলেও সেন্ট গ্যালেন-ফ্রিদ্রিসাফেন ফ্লাইটটি বিশ্বের সবচেয়ে স্বল্পতম হতে পারবে না। স্কটল্যান্ডের ওর্কনে দ্বীপপুঞ্জের ওয়েস্ট্রে ও পাপা ওয়েস্ট্রে গ্রামের মধ্যে যে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট, সেটাই এখন পর্যন্ত ক্ষুদ্রতম বাণিজ্যিক ফ্লাইট হিসেবে গিনেস বুকে উল্লেখিত। আকাশপথে এই দুই গ্রামের একটি থেকে অপরটিতে যেতে সময় লাগে দুই মিনিট। তবে উড্ডয়ন সময় আরও কম, এক মিনিটের কাছাকাছি।

Aviation News