২৩৯৬ কোটি টাকা ব্যয়সাপেক্ষ ১০ প্রস্তাব অনুমোদন

এই লেখাটি 180 বার পঠিত

mal1473255224দুইহাজার ৩৯৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়সাপেক্ষ মোট ১০টি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

এর মধ্যে একহাজার ৪২৭ কোটি ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে ৯টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। বাকি ৯৬৯ কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে বাংলাদেশ টেলিভিশনের জন্য পরিপূর্ণ পাঁচটি টেলিভিশন স্টেশন নির্মাণের অপর একটি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে পৃথক দুটি বৈঠকে এসব প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে সংশ্লিষ্ট কমিটির সদস্য এবং সচিবরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অনুমোদিত প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বহুলেন সড়ক টানেল নির্মাণ প্রকল্পের ডিজাইন রিভিউ ও নির্মাণ তদারকি কাজের পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ডসের দুটিসহ মোট চারটি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে এ সেবা দেবে। এজন্য মোট ব্যয় হবে ২৯১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে সেতু বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় সাড়ে আট হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রামের কর্ণফুলীর তলদেশে বহুলেন সড়ক টানেল নির্মাণ করবে সরকার। জি টু জি ভিত্তিতে চীনের সাংহাই শহরের আদলে এ টানেল নির্মাণ করা হবে। এ প্রকল্পের আওতায় তিন দশমিক ৪০ কিলোমিটার টানেল ছাড়াও ৮০০ মিটার সেতু এবং উভয় প্রান্তে চার দশমিক ৮৯২ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হবে। এ টানেল নির্মিত হলে মূল শহরের সঙ্গে নদীর অপর প্রান্তের সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে।

সূত্র জানায়, অনেকটা চীনের সাংহাইয়ের মতো ‘ওয়ান সিটি টু টাউন’- এ উন্নীত হবে। বিরাট এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে চাইনিজ কোম্পানি ‘চায়না কমিউনিকেশন্স কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসি)।’ সরকারি অর্থায়ন ও চায়না এক্সিম ব্যাংক থেকে নেওয়া ঋণের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে। এরই মধ্যে চীন সরকারের মনোনীত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে ঠিকাদার নিয়োগের জন্য একটি ক্রয় প্রস্তাব সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির কাছে পাঠিয়েছে সেতু বিভাগ। অনুমোদন মিললেই টানেল নির্মাণের আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হবে।’

অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘২০১৪ সালের ২২ ডিসেম্বর টানেল নির্মাণে চায়না কমিউনিকেশন কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেডের (সিসিসিসি) সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি হয়। এরপর চলতি বছরের ২৪ জুন সরকারি অর্থনৈতিক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির (সিসিসিসি) সঙ্গে ৭০৫ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি অনুমোদন করে। এরপর ৩০ জুন কমার্শিয়াল চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এরপর প্রকল্পের নকশা রিভিউ ও নির্মাণ তদারকি কাজের পরামর্শক নিয়োগের প্রস্তাব সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে উপস্থাপন করা হলে তা নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।’

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘বৈঠকে বলা হয়, কক্সবাজার বিমান বন্দর উন্নয়নে মহেশখালী চ্যানেলের পাড়ে ও বাঁকখালী নদীর তীরে স্লোপ প্রটেকশন ও অন্যান্য কাজ সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে বাস্তবায়ন করবে নারায়ণগঞ্জে বাংলাদেশ নৌবাহিনী পরিচালিত ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড। এ জন্য মোট ব্যয় হবে ১৯১ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

বৈঠকে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিজস্ব ভবন নির্মাণ কাজে একটি ভেরিয়েশন প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পে মূল দরের অতিরিক্ত পাঁচ কোটি ৪০ লাখ টাকা বেশি ব্যয় হয়েছে। কমিটি তা অনুমোদন দিয়েছে। এ ছাড়াও বৈঠকে ঢাকার মিরপুরের ৬ ও ৭ নম্বর সেকশনে সরকারি-কর্মচারিদের জন্য ১০৬৪টি ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ১৫০০ বর্গফুট আয়তনের দুটি ২০ তলা ভবন নির্মাণের ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। এজন্য মোট ব্যয় হবে ১৭১ কোটি ১১ লাখ টাকা। ৬ নং ভবন নির্মাণ করবে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জেএসসি-পিএল এবং ৭ নং ভবন নির্মাণ করবে জিকে বিল্ডার্স।’

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘বৈঠকে ঢাকা ওয়াসার তিনটি প্রকল্পের প্যাকেজের কনট্রাক্ট ভেরিয়েশনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তিনটি প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৭৫৬ কোটি ৯২ লাখ টাকা।’

এর আগে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে চীনা বায়ার্স ক্রেডিটে বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) জন্য পাঁচটি পূর্ণাঙ্গ স্টেশন নির্মাণে দুটি চীনা প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে এ টিভি স্টেশন নির্মাণের কাজ পাচ্ছে যৌথভাবে চীনা রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ‘অ্যারোস্পেস লং মার্চ ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড কোম্পানি লিমিটেড (এএলআইটি)’ এবং ‘রেডিও ফিল্ম অ্যান্ড টিভি ডিজাইন অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট (ডিআরএফটি)’। প্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ, ভৌত কাজ ও সেবা ক্রয়ের একক উৎস হিসেবে টার্ন-কি পদ্ধতিতে এ প্রতিষ্ঠান দুটি কাজ করবে। এতে সরকারের মোট ব্যয় হবে ৯৬৯ কোটি ৪১ লাখ টাকা।

তথ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, দেশের পাঁচটি বিভাগীয় (রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, বরিশাল ও খুলনা) শহরে এ টিভি স্টেশনগুলো নির্মাণ করা হবে।

Aviation News