কৃষ্ণাঙ্গদের গির্জায় গিয়ে ভোট চাইলেন ট্রাম্প

এই লেখাটি 121 বার পঠিত

aa9fe9d6d318d74d4ba99714c9550d73-1-1-US-DONALD-TRUMP-ADDRESSES-THE-AMERICAN-LEGION-CONVENTION-034029যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প কৃষ্ণাঙ্গদের গির্জায় গিয়ে ভোট প্রার্থনা করলেন। ডেট্রয়েটের গ্রেট ফেইথ মিনিস্ট্রিজ ইন্টারন্যাশনাল নামের ওই গির্জায় গিয়ে গত শনিবার ভোট চাওয়া ট্রাম্পের কণ্ঠ অনেকটাই নমনীয় ছিল।
ডেট্রয়েটের গির্জার এক পাস্তর বলেন, এই প্রথম আফ্রিকান-আমেরিকান অর্থাৎ কৃষ্ণাঙ্গদের কোনো উপাসনালয়ে গেলেন ট্রাম্প।
ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জাতিগত বিদ্বেষের অভিযোগ আছে। মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গদের মধ্যে তাঁর পক্ষে সমর্থন প্রায় শূন্যের কোঠায়। এ কারণে অতি সম্প্রতি তাদের মন জয়ের চেষ্টা শুরু করেছেন ট্রাম্প।
শনিবার গ্রেট ফেইথ মিনিস্ট্রিজ ইন্টারন্যাশনাল গির্জায় গিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আপনাদের উদ্বেগের কথা শোনার জন্যই আমি এসেছি।’
বেকারদের প্রতি সমবেদনা জানান ট্রাম্প। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘অনেক সম্ভাবনা থাকার পরও কৃষ্ণাঙ্গ তরুণেরা যখন বেকার থাকে, তা দেখা সত্যিই খুব বেদনাদায়ক। এসব তরুণের প্রাণশক্তি আমরা ব্যবহার না করতে পেরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।’ আবেগঘন কণ্ঠে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা এক জাতি। এখানে কেউ যদি আঘাতপ্রাপ্ত হয় সে আঘাত সবার বুকে লাগে।’
যুক্তরাষ্ট্রে ভোটারদের মধ্যে ১২ শতাংশ কৃষ্ণাঙ্গ।
গির্জায় ট্রাম্পকে বেশ সাদরেই গ্রহণ করে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তাঁর বক্তব্যের আগে গির্জার বাইরে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়। প্রতিবাদকারীরা পুলিশের বেষ্টনী ভেঙে ভেতরে ঢুকতে চায়। তারা ‘ট্রাম্প নিপাত যাক’ বলে চিৎকার করে। রিক ম্যাকগোয়ান নামের স্থানীয় এক স্কুলশিক্ষক বলেন, ‘ওঁর এখানে আসার অর্থ কৃষ্ণাঙ্গদের অপমান করা। উনি কোনো দিন আমাদের সহায়তার জন্য আসেননি। এখন কীভাবে তাঁকে বিশ্বাস করব?’
মুসলিম সম্প্রদায় ও অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অনবরত কথা বলে বিতর্কিত হয়েছেন ট্রাম্প। কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে জন্মেছেন, এমন মন্তব্য করেও সমালোচিত হয়েছেন তিনি। শ্বেতাঙ্গ ভোটারদের খুশি করতেই ট্রাম্প এ ধরনের কথা বলেন বলে ধারণা করা হয়।

Aviation News