সরকারি হজযাত্রীদের ৩০ জুনের মধ্যে জমা দিতে হবে পাসপোর্ট

এই লেখাটি 339 বার পঠিত

downloadসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রী ও রাষ্ট্রীয় খরচে এবার যারা হজ পালনে সৌদি আরব যাবেন তাদের তথ্য ফরমসহ পাসপোর্ট আগামী ৩০ জুনের মধ্যে হজ অফিসে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ে পাসপোর্ট ও তথ্য ফরম জমাদানে ব্যর্থ হলে তাদের ভিসা লজমেন্ট করা যাবে না। এদিকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যারা হজ পালনের জন্য নিবন্ধন করেছেন তাদের জন্য সৌদি আরবে বাড়িভাড়া কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
হজ অফিস সূত্র জানায়, চলতি বছর গাইড ও মোনাজ্জেমসহ ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জন বাংলাদেশি হজ পালনের সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৯১ হাজার ৭৫৮ জন। হজ পালনের জন্য ইতোমধ্যে সরকারিভাবে ৪ হাজার ৭২৪ জন এবং বেসরকারিভাবে ৮৬ হাজার ২৯ জনসহ মোট ৯০ হাজার ৭৫৭ জন নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন। বেসরকারি পর্যায়ের হজযাত্রীরা ৪৮৩টি এজেন্সির মাধ্যমে প্রাক-নিবন্ধন ও নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন। নিবন্ধনকারীদের ইতোমধ্যে পিলগ্রিম আইডি প্রদান করা হয়েছে। পিলগ্রিম আইডিপ্রাপ্তদের ভিসা লজমেন্ট সম্পন্ন করতে তাদের পাসপোর্ট ও তথ্যাদিসহ ফরম আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে রাজধানী আশকোনার হজ অফিসে জমা দিতে হজ অফিসের পরিচালককে চিঠি দিয়েছে অলনাইন কার্যক্রম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান বিজনেস অটোমেশন লিমিটেড।
বিজনেস অটোমেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বজলুল হক বিশ্বাস স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছেÑ ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ৩১ মে-এর বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রী, গাইড ও রাষ্ট্রীয় খরচে হজ পালনকারীদের তথ্য ফরমসহ পাসপোর্ট আগামী ৩০ জুনের মধ্যে আশকোনা হজ অফিসে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তথ্য ফরমসহ পাসপোর্ট জমা দিতে ব্যর্থ হলে সৌদি আরবের ই-হজ সিস্টেমে ভিসা লজমেন্টসহ অন্যান্য কার্যবলী সম্পাদন করা যাবে না।
ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, চলতি বছর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যারা হজ পালনের জন্য নিবন্ধন করেছেন তাদের তালিকা ইতোমধ্যে সৌদি আরবে পাঠানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট হজযাত্রীদের জন্য সৌদি আরবে বাড়িভাড়া কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
হাব সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিম বাহা বলেন, বেসরকারি ব্যববস্থাপনা হজযাত্রীদের জন্য সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়া কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বাড়ি ভাড়া কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পরই ভিসা লজমেন্ট কার্যক্রম শুরু করা হবে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মো. বজলুল হক বিশ্বাস আমাদের সময়কে বলেন, সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রী, গাইড ও রাষ্ট্রীয় খরচে হজ পালনকারীদের ভিসা লজমেন্ট কার্যক্রম বিজনেস অটোমেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হবে। সরকারি হজযাত্রীদের ভিসা লজমেন্ট কার্যক্রম সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্ট হজযাত্রীর পাসপোর্ট হজ অফিসে জমা দিতে চিঠি দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, বেসরকারি হজযাত্রীদের ভিসা লজমেন্ট কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সি সম্পন্ন করবে। কিন্তু তাদের ভিসা লজমেন্ট করার যন্ত্রপাতি থাকায় হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশকে (হাব) একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তা হলো, তারা যদি সাভির্স চার্জ দেয়; তাহলে বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের ভিসা লজমেন্ট বিজনেস অটোমেশন লিমিটেড করে দেবে।

Aviation News