মেডিকেল সামগ্রী নিয়ে ভেনেজুয়েলায় চীনা উড়োজাহাজের অবতরণ

এই লেখাটি 57 বার পঠিত
Chinese cargo plane carrying humanitarian aid arrives in Caracas

মেডিকেল সামগ্রী নিয়ে ভেনেজুয়েলায় চীনা উড়োজাহাজের অবতরণ।

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলাকে সহায়তার অংশ হিসেবে বিমানে করে মেডিকেল সামগ্রীর বিশাল একটি চালান পাঠিয়েছে চীন। এ নিয়ে গেল তিন মাসে দেশটিতে দ্বিতীয় বড় ধরনের চালান পাঠাল বেইজিং।
মঙ্গলবার (১৪ মে) এক বিবৃতিতে ভেনিজুয়েলার যোগাযোগ মন্ত্রণালয় জানায়, ‘গত সোমবার (১৩ মে) স্থানীয় সময় বিকালে চীনা সাহায্যবাহী বিমানটি কারাকাস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানটিতে বিপুল সংখ্যক ওষুধ ও সার্জিকেল মেডিকেল সাপ্লাইসহ মোট ২০ লাখ ইউনিট মেডিকেল সামগ্রী রয়েছে।’
এর আগে গত মার্চে চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া এই ভেনেজুয়েলায় ত্রাণ পাঠানো ইস্যুতে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল। যেখানে বলা হয়, সর্বমোট ৬৫ টন মেডিকেল সামগ্রী নিয়ে একটি চীনা বিমান ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাসের সিমন বলিভার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে। পরবর্তীতে কারাকাসে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি বাওরং সেসব চিকিৎসা সামগ্রী ভেনেজুয়েলা সরকারের কাছে হস্তান্তর করেছিলেন। যা প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি স্বাদরে গ্রহণ করেন।
যদিও পরবর্তীতে গতমাসে চীনা সরকার এই মেডিকেল সামগ্রী পাঠানোর সত্যতা ধোঁয়াশা সৃষ্টি করেছিল। তখন বেইজিং দাবি করে, সে সময় বিমানটিতে করে চীন থেকে ভেনিজুয়েলায় মোট ১২০ জন সেনা ও সামরিক সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছিল।
এ দিকে দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশটিতে গত পাঁচ মাস যাবত ব্যাপক রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা চলছে। যেখানে গত জানুয়ারিতে ভেনেজুয়েলার সরকার বিরোধী নেতা হুয়াইন গুয়াইদো নিজেকে দেশটির অন্তর্বর্তী কালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দাবি করেন। যদিও তার সেই দাবিতে শুরু থেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং তাদের সমর্থিত বেশিরভাগ ইউরোপীয় দেশ সমর্থন প্রদান করে আসছিল।
তখন থেকেই ট্রাম্প প্রশাসন দাবি করে আসছিল যে, দেশটির চলমান সঙ্কট নিরসনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে। কেননা তা না হলে কখনই এই সঙ্কটের সমাপ্তি হবে না।
যদিও এত কিছুর পরও রাশিয়া, তুরস্ক, চীন, ইরান এবং কিউবাসহ বিশ্বের অসংখ্য দেশ ভেনেজুয়েলার নির্বাচিত বর্তমান প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো এবং তার নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানায়।
একই সঙ্গে তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট মাদুরো নেতৃত্বাধীন সরকারকে উৎখাতের জন্য দেশটির ওপর অর্থনৈতিক চাপ প্রয়োগের অভিযোগ করে। মূলত এর অংশ হিসেবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ভেনেজুয়েলার ওপর যে কোনো ধরনের বিদেশি হস্তক্ষেপের ব্যাপারে অন্যান্য সকল দেশের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
সূত্র : প্রেস টিভি

Aviation News