বজ্রপাত থেকে বাঁচতে করনীয়

এই লেখাটি 41 বার পঠিত
বজ্রপাত

বজ্রপাত থেকে বাঁচতে করনীয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁয় ঝড়বৃষ্টির সময় বজ্রপাতে ৪ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো ২ জন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঝড়ের সময় এ ঘটনা ঘটে।
বালিয়াডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম জানান, শ্রীরামপুর এলাকায় কয়েকজন শ্রমিক জমিতে ধান কাটছিল। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে হঠাৎ করে ঝড় বৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে শ্রমিক মোশাররফ হোসেন ও রেজাবুল হক মারা যান।
অন্যদিকে নওগাঁর জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান জানান, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে আধা ঘণ্টা ধরে পোরশা, সাপাহার, মান্দা, রাণীনগর, আত্রাই, বদলগাছী ও সদর উপজেলার ওপর দিয়ে প্রবলবেগে ঝড় বয়ে যায়। এছাড়া বৃষ্টিও হয়। এ সময় বজ্রপাত হলে মাঠে থাকা ধান কাটা শ্রমিক শফিনুর ও হাসান নিহত হন।
সাধারণত মার্চ থেকে মে এবং অক্টোবর থেকে নভেম্বরের মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি বজ্রঝড় হয়ে থাকে। বজ্রপাতের সময় পাকাবাড়ির নিচে আশ্রয় নিতে এবং উঁচু গাছপালা বা বিদ্যুতের লাইন থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।
এ সময় জানালা থেকে দূরে থাকার পাশাপাশি ধাতব বস্তু এড়িয়ে চলা, টিভি-ফ্রিজ না ধরা, গাড়ির ভেতর অবস্থান না করা এবং খালি পায়ে না থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।
আসুন জেনে নেই বজ্রপাতের সময় কী করবেন?
১. ঘন ঘন বজ্রপাতের সময় খোলা বা উঁচু জায়গায় না থেকে দালানের নিচে আশ্রয় নিন।
২. বজ্রপাত ও ঝড়ের সময় বাড়ির ধাতব কল, সিঁড়ির রেলিং, পাইপ ইত্যাদি সংস্পর্শ থেকে দূরে থাকুন। ল্যান্ডফোন ব্যবহার থেকেও বিরত থাকুন।
৩. বজ্রপাতের সময় বৈদ্যুতিক সংযোগযুক্ত সব ধরনের যন্ত্রপাতির প্লাগ খুলে রাখুন।টিভি, ফ্রিজ ইত্যাদি বন্ধ করা থাকলেও স্পর্শ করা ঠিক হবে না।
৪. বজ্রপাতের সময় গাড়িতে থাকলে দ্রুত বাড়িতে ফেরার চেষ্টা করুন।
৫. বৃষ্টি হলে রাস্তায় পানি জমতে পারে। অনেক সময় বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে সেই পানিতে পড়ে হতে পারে দুর্ঘটনা।
৬. বজ্রপাতের সময় চামড়ার ভেজা জুতা বা খালি পায়ে থাকা খুবই বিপজ্জনক।
৭. ভয় পাবেন না। মাথা ঠাণ্ডা রাখুন।
৮. বিদ্যুতের খুঁটি, টাওয়ার – এসব থেকে দূরে থাকুন।

Aviation News