ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র কারণে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে সতর্কতা জারি

এই লেখাটি 382 বার পঠিত
Foni 2

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র কারণে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন বিমান সংস্থার ফ্লাইট বাতিলসহ সিডিউলেও সাময়িক পরিবর্তন আনা হয়েছে।

অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স তিনটি ফ্লাইট বাতিল করেছে। এছাড়া নভোএয়ারের পাঁচটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।
ইউএস বাংলা এবং রিজেন্ট এয়ার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ফ্লাইট বাতিল করেনি।

যদিও হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান ওঠানামা স্বাভাবিক ছিল। তবে পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ও আবহাওয়া অফিস। ফনীর প্রভাব বেশি হলে পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তপক্ষ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন আবদুল্লাহ আল ফারুক বলেন, ‘ফ্লাইট বন্ধের ঘটনা ঘটেনি। কার্যক্রম স্বাভাবিক আছে। তবে সাইক্লোন মোকাবেলায় বিমানবন্দরে সতকর্তা জারি করা হয়েছে। বিভিন্ন গন্তব্যে বিমান ছেড়ে গেছে এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা উড়োজাহাজ স্বাভাবিকভাবে অবতরণ করেছে। জরুরী কোনো পরিস্থিতি তৈরী হলে আমরা ‘স্টান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর’ অনুযায়ি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।’

তিনি আরো বলেন, ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর আবহাওয়ার অবস্থা দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো খারাপ পরিস্থিতির খবর নেই বলে জানান তিনি।

গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রাম-কক্সবাজারসহ দেশের সবকটি রুটে উড়োজাহাজ পরিচালনা করেছে বেসরকারী বিমান সংস্থাগুলো। তবে রাষ্ট্রায়ত্ব বিমান সংস্থার দুটি ফ্লাইট বাতিল করেছে বিমান কর্তৃপক্ষ।
ওদিকে, কলকাতার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস বিমানবন্দরে শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টা থেকে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বিমান ওঠানামা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে ‘ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন’ (ডিজিসিএ)। বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে শুক্রবার রাত ১২টা পর্যন্ত ভুবনেশ্বরের সমস্ত বিমানচলাচল বাতিলের নির্দেশ দিয়েছে তারা। এর ফলে শুক্রবার রাত থেকেই ঢাকা-কলকাতা গন্তব্যের যাত্রীরা আটকে গেছেন। বিমানবন্দরে তারা ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়েছেন বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ  বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের তিনটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। আজকের (গতকাল শুক্রবার) সন্ধ্যা ৬টা ১৫ মিনিটের ঢাকা-যশোর রুটের বিজি ৪৬৭ এবং সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটের যশোর-ঢাকা রুটের বিজি ৪৬৮ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-সৈয়দপুর ফ্লাইটও বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তী ফ্লাইটে এসব যাত্রী পরিবহন করা হবে। এছাড়া, শুক্রবার সন্ধ্যার ঢাকা-কোলকাতা রুটের বিজি ০৯৫ ফ্লাইট আগামীকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ডিলে করা হয়েছে। এছাড়া সকালের কলকাতা ফ্লাইট বিকেল সাড়ে তিনটায়।’

নভোএয়ারের বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের প্রধান মেজবাউল ইসলাম  বলেন, ‘কলকাতা বিমানবন্দর থাকায় আমরা এই রুটের ফ্লাইট বাতিল করেছি। এছাড় শনিবার দুপরের ফ্লাইটও বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে অভ্যন্তরীণ রুটে শনিবার চট্রগ্রামের ২টি ফ্লাইট, যশোরের ১টি এবং কক্সবাজারের একটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।’

Aviation News